টেকনো ইনফোঃ আসসালামু আলাইকুম। টেকনো ইনফো বিডি তে আপনাদেরকে স্বাগতম। আশা করি আল্লাহর রহমতে আপনারা সবাই ভাল আছেন।  আজ আপনাদের জন্য নিয়ে এলাম ওয়েবসাইটের একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান ডোমেইন এর A-Z বিষয়ের একটি পোস্ট। আশা করি পোস্টটি আপনাদের ডোমেইন বিষয়ক যাবতীয় প্রশ্নের সমাধান প্রদানে সক্ষম হবে। আগেই বলে রাখি পোস্টটি নতুনদের জন্য এক্সপার্টদের জন্য নয়। তবে আসুন আর কথা না বাড়িয়ে মূল পোস্ট যাওয়া যাক।

ডোমেইন কি? (What is Domain):

ডোমেইন/Domain ইংরেজি শব্দ যার বাংলা অর্থ স্থান। আপনি যদি একটি ওয়েবসাইট খুলতে চান তবে ইন্টারনেটে আপনাকে একটি স্থান তথা ডোমেইন কিনতে হবে। আপনার অফিসে যদি কেউ আসতে চায়, তবে তাকে এর ঠিকানা জানতে হবে। ওয়েবসাইটের ক্ষেত্রে এই ঠিকানাটা হচ্ছে তার নাম যাকে বলা হয় ডোমেইন নেম । এই ডোমেইন নেমই আপনার ওয়েবসাইটকে স্বতন্ত্র ভাবে আইডেন্টিফাই করবে।

প্রত্যেক মানুষেরই একটি নাম থাকে এবং এই নামেই তার পরিচয় বহন করে থাকে। ডোমেইন নেম অনেকটা মানুষের নামের মতই। ডোমেইন নেম এবং মানুষের নামের মধ্যে পার্থক্য হচ্ছে মানুষের নাম ইউনিক নয় অর্থাৎ একটি নাম একাধিক মানুষের থাকে কিন্তু ডোমেইন নেম সম্পূর্ণ ইউনিক অর্থাৎ একটি ডোমেইন পৃথিবীতে আর দ্বিতীয়টি নেই।

ডোমেইন হচ্ছে একটি ওয়েবসাইট এর ঠিকানা। যার মাধ্যমে ব্যবহারকারী আপনার ওয়েবসাইটটি খুঁজে পাবে। উদাহরন হিসেবে বলা যায় www.technoinfobd.com একটি ডোমেইন নেম। আবার ডোমেইন নেম এর পরিবর্তে আইপি এড্রেস ব্যবহার করেও www.technoinfobd.com ওয়েবসাইটে প্রবেশ করা যাবে। কিন্তু আইপি এড্রেস সাধারণত সংখ্যায় থাকে যা মনে রাখা খুবই কঠিন।যেমন 10.196.001.002 একটি IP Address (Internet Protocol Address)। কিন্তু এভাবে তো আর সব ওয়েবসাইট এর IP Address মনে রাখা সম্ভব না। এই সমস্যা দূর করার জন্য মূলত Domain Name এর উদ্ভব।

ডোমেইন এর গঠনঃ

প্রত্যেকটি Domain প্রধানত ২টি অংশ নিয়ে গঠিত। একটি হচ্ছে Domain Name এবং আরেকটি Domain Suffix ।
technoinfobd.com এই ডোমেইন এর technoinfobd হচ্ছে Domain Name এবং .com হচ্ছে Domain Suffix ।

আবার http://www.technoinfobd.com একটি ডোমেইন নেম। এখানে, “http://” অংশটুকু হচ্ছে প্রোটোকল, “www.” হচ্ছে Hostname, “technoinfobd” হচ্ছে প্রতিষ্ঠানের নাম/ডোমেইন নেম/2nd Level Domain এবং “.com” অংশটুকু হচ্ছে ডোমেইন এক্সটেনশন । অর্থাৎ একটি সাইটের গঠন হচ্ছে প্রোটোকল//:ওয়েব.ডোমেইন নেম.ডোমেইন এক্সটেনশন।

ডোমেইন নেমের শর্তঃ

Domain Name-এ সর্বনিম্ন ৩ টি অক্ষর থাকতে হবে আর সর্বোচ্চ ৬৩ টি অক্ষর থাকতে পারবে। শুধু ইংরেজি অক্ষর, ০-৯ পর্যন্ত সংখ্যা আর “-” (Hyphen) Domain Name এর ভিতর ব‍্যবহার করা যাবে।

ডোমেইন এর এক্সটেনশনঃ

ওয়েবসাইটের ধরণ অনুযায়ী এক্সটেনশন সিলেক্ট করা হয়। এরকম কিছু এক্সটেনশন দেখে নেই,.

  • .com বহুল ব্যবহৃত এক্সটেনশন। সাধারণত কোম্পানি ওয়েবসাইটের জন্য ব্যবহার করা হয়।
  • .net এক বা একাধিক নেটওয়ার্কের জন্য ব্যবহৃত।
  • .org কোন অর্গানাইজেশন/সংগঠন এর ওয়েবসাইট এর জন্য।
  • .info ব্যক্তিগত অথবা তথ্যভিক্তিক ওয়েবসাইটের জন্য ব্যবহৃত।
  • .me সাধারণত পোর্টফলিও ওয়েবসাইটের জন্য ব্যবহার করা হয়।

ডোমেইন এর ধরনঃ

ধরনের দিক থেকে বিবেচনা করলে ডোমেইন বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে। যেমন TLD, gTLD, SLD, ccTLD ইত্যাদি

♦TLD:
Top Level Domain, ইন্টারনেট ডোমেন নামকরণ সিস্টেমের সর্বোচ্চ স্তরের ডোমেন বিভাগ। এ ধরনের ডোমেইন গুলোই সচারচর আমরা বেশি দেখে থাকি। Top Level Domain বোঝার উপায় হলো এর এক্সট্রেইনশন গুলো .com, .net, .org, .me, .info হয়ে থাকে।

♦SLD:
Second Level Domain, ডোমেন নামের একটি অংশ যা ডট(.) এর আগে আসে। যেমন: technoinfobd.com, এখানে SLD হচ্ছে technoinfobd

♦gTLD:
Generic TOP Level Domains, একটি টপ লেভের ডোমেন এর শ্রেণী কিন্তু যেটি কোন দেশের সাথে যুক্ত নয়, যেমন: .com, .net, .org ইত্যাদি।

♦ccTLD:
Country Code Top Level Domain, প্রতিটি দেশের ২টি অক্ষর ডেমেন এর শেষ অংশে যুক্ত হয়ে যে ডোমেইন নামটি গঠন করে তাকেই ccTLD বলে। যেমন বাংলাদেশের .bd পাকিস্তানের .pk আমেরিকার .us ইউনাইটেড কিংডমের .uk ইন্ডিয়ার .in

# কিভাবে একটি সঠিক ডোমেইন নেম নির্বাচন করবেনঃ

 ১। .com এক্সটেইনশনের ডোমেইনকে প্রধান্য দিনঃ

ডোমেইন রেজি: এর জন্য বিভিন্ন ধরনের এক্সটেইনশন আছে। শুরুর দিকে মানুষ .com, .net, .org ডোমেইন নেমের সাথে পরিচিত ছিলো। কিন্তু সময়ের পরিবর্তনের সাথে সাথে বিভিন্ন এক্সটেইনশন এসেছে। এখন তো চাইলে নীশ স্পেসিফাই করেও এক্সটেইনশন নেয়া যায়। যেমন .pizza , .photographt, .travel .ninja ইত্যাদি।

তবে  আমি সব সময় সাজেস্ট করি .com ডোমেইন এক্সটেইনশন ব্যবহার করার জন্য। কারন .com এখন পর্যন্ত সব থেকে বহুল ব্যবহৃত ডোমেইন এক্সটেইনশন।

২। সহজে টাইপ করা যায় এবং সহজ নাম পছন্দ করুনঃ

সবসময় এমন একটি ডোমেইন নেম খুঁজে বের করার চেষ্টা করুন যেটি টাইপ করা সহজ এবং উচ্চারণযোগ্য।

  • blogger.com
  • facebook.com
  • wikihow.com

উপরের ডোমেইন নাম গুলোতে খেয়াল করুন। সাইটগুলো খুব সহজেই টাইপ করা যায় এবং প্রত্যেকটা সাইটই সহজবোধ্য। তাই ডোমেইন নাম নির্বাচনের ক্ষেত্রে সবসময় অপ্রয়োজনীয় শব্দ এড়িয়ে চলুন। এমন নাম পছন্দ করুন যেটা খুব সহজেই বোঝা যায় এবং মনে রাখাও সহজ।

৩। সহজ এবং ছোট নাম নির্বাচন করুনঃ

ডোমেইন যতোটা সম্ভব ছোট রাখার চেষ্টা করুন। আপনার ডোমেনের নাম জটিল এবং লিখতে সমস্যা হয় এ ধরনের শব্দ পরিহার করা উচিত। এক্ষেত্রে ভিজিটরের ভুল টাইপ বা বানান ভুল করার সম্ভবনা থাকে। তাই ছোট ও সহজে মনে রাখা যায় এমন ডোমেইন নেম নির্বাচন করুন। ব‍্যক্তিগত ভাবে আমি সর্বোচ্চ ৮-১০ অক্ষর ডোমেইন নাম রাখতে পরামর্শ দিব।

৪। কীওয়ার্ড দিয়ে ডোমেন না নেয়াঃ

ওয়বেসাইট তৈরির আগে আমরা সবাই কীওয়ার্ড রিসার্চ করি। এক্ষেত্রে অনেক সময় আমরা মেইন কীওয়ার্ড টি ডোমেইন এর মধ্যে রাখি, যেটিকে বলা হয় EMD (Exact Match Domain) কিন্তু বর্তমানে Google EMD কে আগের মত অতটা গুরুত্ব দেয়না।

৫। অবাঞ্চিত ক্যারেক্টার, হাইপেন ব্যবহার না করাঃ

ডোমেইন নামের মধ্যে কোনো অবাঞ্চিত ক্যারেক্টার কিংবা সিম্বল ব্যবহার করা উচিত নয়। যাতে করে ডোমেইন নেম টাইপ করার সময় ভিজিটরের কোনো ধরনের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে।

৬। ডোমেইন নিয়ে বিস্তারিত জেনে নিনঃ

ডোমেইন নাম রেজি: করার আগেই নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনার নির্বাচিত নামটি ট্রেডমার্ক, কপিরাইটযুক্ত বা অন্য কোম্পানী দ্বারা ব্যবহৃত হচ্ছে না। কারন তা না হলে আপনাকে বড় ধরনের আইনি জটিলতার সম্মুখীন হতে পারে।

৭। নিজস্ব ব্র্যান্ডিং নিশ্চিত করুনঃ

আপনার ব্র্যান্ড কে সুরক্ষিত করার জন্য আপনার ডোমেইন নেমের বাকি এক্সটেনশানগুলি আগে থেকেই কিনে রাখতে পারেন। আপনি নিশ্চই দেখতে চাইবেন না আপনার .Com ডোমেইনের কম্পিটিটর হিসেবে আপনার একই নামের .net এক্সটেইনশনের একটি ডোমেইন আপনার কম্পিটিটর হিসেবে দাড়িয়ে গেছে। এক্ষেত্রে অন্তত TLD – Top Level Domain গুলো কিনে রাখতে পারেন। এটি অন্যান্যদের থেকে আপনাকে এগিয়ে রাখতে সহায়তা করবে।

৮। দ্রুত ডোমেইন কিনে ফেলাঃ

ডোমেইন নাম খুব দ্রুত বিক্রি হয়। আর আমরা এই ভুল টাই বেশিরভাগ সময় করে থাকি। জেনে রাখবেন সময় ও একটি ভালো ডোমেইন নাম আপনার জন্য অপক্ষা করবে না। তাই যত দ্রুত সম্ভব আপনার প্রিয় ডোমেইন নামটি রেজি: করে ফেলুন।

এ সাইট গুলো আপনাকে সঠিক ডোমেইন নেমটি খুঁজে পেতে সহায়তা করবে।

  • https://www.dynadot.com
  • https://www.namesilo.com

# কোথায় থেকে ডোমেইন কিনবেনঃ

যেখান থেকেই ডোমেইন কিনেন না কেন কেনার আগে যে বিষয়গুলো ভালো ভাবে জেনে নিবেন;

  • ডোমেইন রেজিস্ট্রশন ফি
  • প্রতিষ্ঠানের সামগ্রিক আবস্থা
  • কন্ট্রোল প্যানেল
  • প্রতিষ্ঠানটি ডোমেইন এর পুরো কন্ট্রোল আপনাকে দিবে কিনা?
  • পরবর্তীতে অন্য কোথাও ট্রান্সফার করে নেয়া যাবে কিনা?

উপরের বিষয় গুলো বিবেচনা করে যে কেউ ভালো কোন প্রতিষ্ঠান থেকে Domain ক্রয় করতে পারেন।

ডোমেইন কেনার জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় সাইট হচ্ছে godaddy.com, networksolution, namecheap। এখান থেকে কিনলে যদিও দাম একটু বেশি (godaddy.com) পরবে তাতেও ভালো কারন ডোমেইন এর পুরো কন্ট্রোল আপনার কাছেই থাকবে।

নিচে কিছু বাংলাদেশি ডোমেইন রেজিস্টার কোম্পানির এড্রেস দেয়া হল। এখান থেকেও ইচ্ছা করলে আপনার পছন্দের ডোমেইনটি কিনতে পারেন।

  • www.rajwebhost.com
  • www.instra.com
  • www.dnsbd.com
  • www.ehost.com.bd
  • www.eicra.com
  • www.btcl.com.bd
  • www.alpha.net.bd
  • www.domain.org.bd
  • www.whois.com.bd
  • www.nanoitwirld.com
  • www.bddomain.com.bd
  • www.webtechsoft.com

# ডোমেইন এর দামঃ

প্রোভাইডার ভেদে ডোমেইন এর দাম কম বেশি হয়ে থাকে। .Com/.Net/.Org ডোমেইন গুলো ৬৫০ টকা থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে কিনতে পারা যায় ।

পোস্টের শেষে এসে লেখাটি কেমন লাগলো জানালে খুশি হব। আর আপনাদের যদি আরও কোনো বিষয়ে জানার আগ্রহ থাকে তাহলে কমেন্টসের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন। ভবিষ্যতে আমরা বিষয়টি শেয়ার করার সর্বাত্মক চেষ্টা করব। আজকের আজকের মত বিদায় সবাই ভাল থাকবেন সুস্থ থাকবেন।  আল্লাহ হাফেজ।

সূত্রঃ ইন্টারনেট (সংশোধিত ও পরিমার্জিত)।

Facebook Comments