বাংলাদেশ ব্যাংকের সহকারী পরিচালক হওয়ার স্বপ্ন যাঁদের

ব্যাংক খাতে অন্যতম আকর্ষণীয় চাকরি হিসেবে ধরা হয় বাংলাদেশ ব্যাংকের সহকারী পরিচালক পদ। তরুণ-তরুণীদের কাছে বিসিএসের মতোই এই পদ অন্যতম পছন্দের। সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংক নবম গ্রেডে ২২৫ জন সহকারী পরিচালক নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে।

আরও দেখুন:
সমন্বিত ব্যাংক নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি নিবেন যেভাবে
প্রিন্সিপাল অফিসার নিয়োগ দেবে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক, পদ সংখ্যা ১০১টি
সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার নিয়োগ দেবে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক, পদ সংখ্যা ২৪টি

অনলাইনে ফরম পূরণের মাধ্যমে ফি ছাড়াই আবেদন করা যাবে ১৫ জুন পর্যন্ত। দেশের ব্যাংকিং খাতে অবদান রাখার সুযোগ, সামাজিক মর্যাদা, আর্থিক নিরাপত্তার নিশ্চয়তাসহ উন্নত কর্মপরিবেশ, উচ্চশিক্ষার সুযোগ ও পদোন্নতিক্রম বিবেচনায় স্বপ্নের ক্যারিয়ার গড়তে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সহকারী পরিচালক পদে যোগদানের জন্য যথাযথভাবে আবেদন করার পাশাপাশি জানা প্রয়োজন পরিপূর্ণ প্রস্তুতির খুঁটিনাটি।

টেকনো ইনফো বিডি‘র প্রিয় পাঠক: প্রযুক্তি, ব্যাংকিং ও চাকরির গুরুত্বপূর্ণ খবরের আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ টেকনো ইনফো বিডি তে লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন।

যেকোনো বিষয়ে পড়াশোনা করে বাংলাদেশ ব্যাংকের চাকরিতে আবেদন করা যায় কি না।

শিক্ষার্থীদের মনে শুরুতেই যে প্রশ্নটি উঁকি দেয় তা হলো—আমি কি যেকোনো বিষয়ে পড়াশোনা করে ব্যাংলাদেশ ব্যাংকের সহকারী পরিচালক পদে আবেদন করতে পারব? এক কথায় উত্তর হলো, পারবেন। স্বীকৃত কোনো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চার বছরমেয়াদি স্নাতক ডিগ্রি থাকলেই আবেদন করা যাবে।

তবে অবশ্যই স্নাতকের ফলাফল আবেদনের শেষ তারিখের আগে প্রকাশিত হতে হবে। মাধ্যমিকের পর থেকে অন্তত দুটিতে প্রথম শ্রেণি বা সমমানের সিজিপিএ থাকা আবশ্যক। কোনো পর্যায়ে তৃতীয় শ্রেণি থাকা চলবে না।

স্নাতক পর্যায়ে পড়াশোনার বিষয় চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে কতটুকু প্রভাব ফেলে।

অনেকে ভেবে থাকেন ব্যাংকিং, ফিন্যান্স, ব্যবস্থাপনা, অর্থনীতি বা ব্যবসায়–সংক্রান্ত বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রিধারীরা কেন্দ্রীয় ব্যাংকে চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে বাড়তি সুবিধা পান বা প্রতিযোগিতার দৌড়ে এগিয়ে থাকেন। আসলে একাডেমিক ব্যাকগ্রাউন্ড কোনো বিষয় নয়। নিয়োগ পরীক্ষা সবার জন্যই লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড।

পরীক্ষায় ভালো করা প্রধান বিবেচ্য। তবে সরাসরি ব্যাংকিং পেশাসংশ্লিষ্ট বিষয় পড়াশোনার কারণে কেউ যদি পরীক্ষায় ভালো করেন বা মৌখিক পরীক্ষায় ভালো বলেন, সেটা ভিন্ন কথা। পরীক্ষায় ভালো করার কারণে বিজ্ঞান, কৃষি, প্রকৌশল ও প্রযুক্তিতে স্নাতক বা স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারী অনেকেই নিয়োগ পরীক্ষায় ভালো করছেন ও প্রতিযোগিতায় এগিয়ে থাকছেন। এ বছর বাংলাদেশ ব্যাংকের সহকারী পরিচালক পদে নিয়োগ পরীক্ষায় প্রথম হওয়া প্রার্থী একজন বুয়েট গ্র্যাজুয়েট। আবার গত বছরও ছিল তা–ই।

বাংলাদেশ ব্যাংকে চাকরির নিয়োগ পরীক্ষা কয় ধাপে ও কীভাবে অনুষ্ঠিত হয়।

সাধারণত তিন ধাপে নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। নম্বর বণ্টনে ভিন্নতা থাকলেও গুরুত্ব বিবেচনায় প্রতিটি ধাপই গুরুত্বপূর্ণ। সহকারী পরিচালক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় প্রথম ধাপ হলো ‘নকআউট–ভিত্তিক’ প্রিলিমিনারি পরীক্ষা। এ অংশে বাংলা, ইংরেজি, গণিত, সাধারণ জ্ঞান এবং কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি অংশ থেকে সাধারণত ৮০ থেকে ১০০টি প্রশ্ন করা হয়। এ ক্ষেত্রে ভুল উত্তরের জন্য নম্বর কাটা হয়।

প্রিলিমিনারি ধাপে টিকে থাকতে পারলেই কেবল ২০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার সুযোগ পাওয়া যায়। লিখিত অংশে বাংলা ও ইংরেজিতে রচনা, সংক্ষিপ্ত অনুবাদ, প্যাসেজ থেকে প্রশ্নোত্তর, ভুল সংশোধনের ওপর প্রশ্ন করা হয়ে থাকে। লিখিত পরীক্ষায় নম্বর বিচারে এগিয়ে থাকলেই কেবল ডাক পাবেন মৌখিক পরীক্ষার জন্য। নিয়োগ পরীক্ষার শেষ ধাপে ভালো করতে পারলে লিখিত অংশের নম্বরসহ চূড়ান্ত মনোনয়ন তালিকায় স্থান পেতে পারেন।

পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য কখন থেকে কীভাবে পড়াশোনা শুরু করব।

এক কথায় এখনই শুরু করুন। এ জন্য সবচেয়ে সহজ পথ হলো বিগত কয়েক বছরের প্রশ্ন দেখে পড়াশোনা শুরু করে দেওয়া। পরীক্ষার ধরন সম্পর্কে সঠিক ধারণা ও প্রয়োজনীয় পড়াশোনার মাধ্যমে সমন্বিত প্রস্তুতি নিতে পারলে সফল হওয়া যাবে।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button