১৭ বছর পর কমানো হলো ব্যাংক রেট

0

যে কোন দেশের ব্যাংক ঋণের ভিত্তি সুদ হলো ব্যাংক রেট। দীর্ঘ ১৭ বছর পর ব্যাংক রেটে পরিবর্তন আনলো কেন্দ্রীয় ব্যাংক। ৫ শতাংশ সুদ থেকে এটিকে ৪ শতাংশে নামিয়ে আনা হয়েছে। ২০২০-২১ অর্থবছরের মুদ্রানীতি ঘোষণার পর এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে ব্যাংক রেটে কাটছাটের তথ্য জানানো হয়েছে।

ব্যাংক রেট কমার কারনে সবড়য়ে বেশি উপকৃত হবে সরকার ও সরকারি কর্মকর্তারা। এর ফলে ব্যাংক থেকে কম সুদে সরকার ঋণ নিতে পারবে। সুদহার কমবে সরকারি ট্রেজারি বিল ও বন্ডের। চলতি অর্থবছরে দেশের ব্যাংকিং খাত থেকে ৮৪ হাজার ৯৮৩ কোটি টাকা ঋণ নেয়ার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে সরকার।

সরকারি কর্মকর্তাদের জন্য ব্যাংক রেটে ঋণের ব্যবস্থা করেছে সরকার। সরকারি কর্মকর্তারা এতোদিন ৫ শতাংশ সুদে ব্যাংক থেকে ঋণ পেতো। এখন ব্যাংক রেটের সুদ ১ শতাংশ কমানোর ফলে সরকারি কর্মকর্তাদের ঋণের সুদহারও কমে যাবে। সরকারি কর্মকর্তারা ৪ শতাংশ সুদে ব্যাংক ঋণ পাবেন বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

২০০৩ সালের ৬ নভেম্বর এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে ব্যাংক রেট ৫ শতাংশ নির্ধারণ করেছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। সে প্রজ্ঞাপনে সংশোধনী এনে আজ নতুন প্রজ্ঞাপন জারি করা হলো।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে জারিকৃত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সম্প্রতি ঘোষিত ঋণ বা বিনিয়োগের সুদহার যৌক্তিকীকরণ নীতিমালার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ব্যাংক রেট বিদ্যমান বার্ষিক ৫ ভাগ থেকে কমিয়ে ৪ ভাগে পুনঃনির্ধারণ করা হলো। বাংলাদেশ ব্যাংক অর্ডার ১৯৭২ এর ২১ অনুচ্ছেদ প্রদত্ত ক্ষমতা বলে নির্দেশনাটি জারি করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। আজ থেকেই ব্যাংক রেটের নতুন সুদহার কার্যকর হবে বলে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়

Leave a Reply