সাধারণ ছুটিতে ব্যাংকারদের বিশেষ প্রণোদনা ভাতা প্রদান প্রসঙ্গে

0

২৮ মের পর প্রণোদনা ভাতা পাবেন না ব্যাংকাররা।
করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে চলমান সাধারণ ছুটির সময় যেসব ব্যাংক কর্মকর্তা-কর্মচারী স্ব শরীরে উপস্থিত থেকে অফিস করছেন তাদের জন্য বিশেষ প্রণোদনা ভাতা ঘোষণা করেছিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

আগামী ২৮ মের পর হতে এ প্রণোদনা ভাতা আর পাবেন না তাঁরা। তবে ২৯ মে হতে স্ব-শরীরে উপস্থিত কর্মকর্তা কর্মচারীরা ব্যাংকের নিজস্ব নীতিমালার আওতায় যাতায়াত ভাতা পাবেন। আজ রবিবার বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে এ সংক্রান্ত সার্কুলার জারি করে বাংলাদেশের সকল তফসিলি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী বরাবর পাঠানো হয়েছে। ব্যাংক বার্তার পাঠকদের জন্য উক্ত সার্কুলারটি হুবহু নিচে তুলে ধরা হলো:

বিষয়: করােনা ভাইরাস (COVID-19) সংক্রমণ রােধে সরকার ঘােষিত সাধারণ ছুটিকালীন ব্যাংকে স্বশরীরে কর্মরত কর্মকর্তা/কর্মচারীগণকে বিশেষ প্রণােদনা ভাতা প্রদান প্রসংগে।

উপযুক্ত বিষয়ে ১২ এপ্রিল ২০২০ তারিখে জারিকৃত বিআরপিডি সার্কুলার লেটার নং-১৭ এবং ০৫ মে ২০২০ তারিখে জারিকৃত বিআরপিডি সার্কুলার লেটার নং-২৪ এর প্রতি আপনাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করা যাচ্ছে।

০২। নভেল করােনা ভাইরাস (COVID-19) এর প্রাদুর্ভাবের কারণে সীমিত ব্যাংকিং কার্যক্রমের মধ্যেও সরকার ঘােষিত সাধারণ ছুটিকালীন ব্যাংকিং খাতকে সচল রাখতে যেসব কর্মকর্তা-কর্মচারী স্বশরীরে ব্যাংকে গমণপূর্বক সক্রিয়ভাবে দায়িত্ব পালন করছেন তাদের উক্ত সার্কুলার লেটার দুটির মাধ্যমে বিশেষ প্রণােদনা প্রদানের নির্দেশনা প্রদান করা হয়।

০৩। এক্ষণে, ব্যাংকিং কর্মকান্ড গতিশীল করার মাধ্যমে অর্থনীতি পুনরুজ্জীবিতকরণের লক্ষ্যে অন্যান্য সেক্টরের ন্যায় ব্যাংকিং কার্যক্রম চালু রাখার আবশ্যকতা পরিলক্ষিত হচ্ছে। সীমিত ব্যাংকিং কার্যক্রম ধীরে ধীরে প্রত্যাহারপূর্বক স্বাভাবিক ব্যাংকিং কার্যক্রম শুরু করার বিষয়ে ইতােমধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংক বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। এ প্রেক্ষিতে, তফসিলী ব্যাংকগুলােকে তাদের ব্যাংকিং কার্যক্রম পর্যায়ক্রমে স্বাভাবিক ধারায় ফিরিয়ে আনার প্রয়ােজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ আবশ্যক হয়ে পড়েছে।

০৪। বর্ণিত প্রেক্ষাপটে, ২৮ মে এর পর হতে ব্যাংকারদের জন্য ব্যাংকে স্বশরীরে উপস্থিত থেকে কার্যক্রম পরিচালনার জন্য বিশেষ প্রণােদনা ভাতা প্রদান অব্যাহত রাখার আবশ্যকতা পরিলক্ষিত হয় না।

০৫। এমতাবস্থায়, বিশেষ প্রণােদনা ভাতার প্রাপ্যতা ১২ এপ্রিল, ২০২০ তারিখে জারিকৃত বিআরপিডি সার্কুলার লেটার নং-১৭ এর নির্দেশনা মােতাবেক সরকার ঘােষিত সাধারণ ছুটি শুরুর তারিখ হতে ২ (দুই) মাস পর্যন্ত কার্যকর থাকবে অর্থাৎ ২৯ মে ২০২০ তারিখে হতে উক্ত সার্কুলার লেটার দুটির কার্যকারিতা থাকবে না।

০৬। তবে, ২৯ মে, ২০২০ হতে সরকার ঘােষিত সাধারণ ছুটিকালীন প্রতি কার্যদিবসে ব্যাংকে স্বশরীরে উপস্থিত কর্মকর্তা/কর্মচারীগণ ব্যাংকের নিজস্ব নীতিমালা/বিধিমালার আওতায় যাতায়াত ব্যয় (Conveyance) প্রাপ্য হবেন।

০৭। ব্যাংক-কোম্পানী আইন, ১৯৯১ এর ৪৫ ধারায় অর্পিত ক্ষমতাবলে এই সার্কুলার লেটার জারি করা হলাে।

আপনাদের বিশ্বস্ত,
(মােহাম্মদ শাহরিয়ার সিদ্দিকী)
উপ-মহাব্যবস্থাপক
ফোনঃ ৯৫৩০৭২৭

সম্পূর্ণ সার্কুলার পিডিএফ আকারে পেতে ক্লিক করুন এখানে

উৎস: ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ, বাংলাদেশ ব্যাংক। বিআরপিডি সার্কুলার লেটার নং-২৭ তারিখঃ ১৭ মে, ২০২০।

Leave a Reply