হোমসাম্প্রতিকন্যূনতম বেতনের চেয়েও বেশি দিচ্ছে কয়েকটি ব্যাংক

ন্যূনতম বেতনের চেয়েও বেশি দিচ্ছে কয়েকটি ব্যাংক

লেখকঃ শেখ আবু তালেব, রিপোর্টার শেয়ার বিজ নিউজ।

আগামী মাস থেকেই বাংলাদেশ ব্যাংকের বেঁধে দেয়া ন্যূনতম বেতন কাঠামো বাস্তবায়ন শুরু করছে অনেক ব্যাংক। কয়েকটি ব্যাংক বেঁধে দেয়া ন্যূনতম বেতনের চেয়েও বেশি দেয়ার কথা ঘোষণা করেছে। এর মধ্যে রয়েছে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড, স্যোশাল ইসলামী ও স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক।

আরও দেখুন:
ব্যাংকে সর্বনিম্ন বেতন-ভাতা নির্ধারণ ও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হস্তক্ষেপ
ম্যানেজমেন্টের যে ভুলে হারিয়ে যান যোগ্য কর্মীরা
ব্যাংকারদের সর্বনিম্ন বেতনের পরিমার্জিত নির্দেশনাকে অভিনন্দন জানিয়েছে এবিবি

আবার কয়েকটি ব্যাংকের নতুন বেতন কাঠামো বাস্তবায়ন নিয়ে কোনো চিন্তা-ভাবনার প্রয়োজনই পড়ছে না। তাদের বেতন কাঠামো অনেক আগে থেকেই বাংলাদেশ ব্যাংকের ন্যূনতম বেতন কাঠামোর চেয়ে অনেক বেশি। তাদের শুধু অফিস সহায়কদের ও আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে নিয়োগ দেয়া ব্যক্তিদের বেতন বৃদ্ধি করতে হবে। অর্থাৎ বেতন রিফিক্সেশন বা সমন্বয় করতে হবে। এ তালিকায় রয়েছে বেসরকারি খাতের ব্যাংক এশিয়া।

টেকনো ইনফো বিডি‘র প্রিয় পাঠক: প্রযুক্তি, ব্যাংকিং ও চাকরির গুরুত্বপূর্ণ খবরের আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ টেকনো ইনফো বিডি তে লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন।

অপরদিকে এ পর্যন্ত আটটি ব্যাংক নতুন কাঠামো অনুযায়ী বেতন দেয়ার কথা ঘোষণা করেছে। সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের বিষয়ে কর্মীদের চিঠিও দিয়েছে আট ব্যাংক। বিভিন্ন ব্যাংক সূত্রে জানা গেছে এমন তথ্য।

ঘোষণা দেয়া ব্যাংকের মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংক, গ্লোবাল ইসলামী ব্যাংক, ইউনিয়ন ব্যাংক, সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ, মার্কেন্টাইল ব্যাংক ও আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক। মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের (এমটিবি) নতুন বেতন কাঠামো বাস্তবায়নের প্রস্তাব পরিচালনা পর্ষদের অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। আগামী ১ এপ্রিল থেকেই ব্যাংকটি নতুন বেতন কাঠামো বাস্তবায়নের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।

এ বিষয়ে এমটিবির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘নতুন বেতন কাঠামো বাস্তবায়নে শুধু সর্বনিন্ম একটি ধাপের কর্মীদের বেতন বৃদ্ধি করতে হবে। এছাড়া অন্যান্য পর্যায়ে তেমন কোনো প্রভাব পড়বে না। অফিস সহায়কদের বেতন বৃদ্ধির বিষয়টিও চূড়ান্ত করা হয়েছে। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই এটি বাস্তবায়ন করার প্রস্তুতি নিয়ে ফেলেছে এমটিবি।’

প্রসঙ্গত, ব্যাংকারদের ন্যূনতম বেতন নির্ধারণ করে দিয়ে নতুন বেতন কাঠামো বাস্তবায়নের নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। আগামী ১ মার্চ থেকে নতুন বেতন কাঠামো কার্যকরের নির্দেশনা দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। মার্চ থেকেই নতুন কাঠামো অনুযায়ী বেতন-ভাতা পাবেন অনেক ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। বর্তমানে রাষ্ট্রায়ত্ত, বেসরকারি ও বিদেশি মিলিয়ে দেশে ৬১টি ব্যাংক রয়েছে। এসব ব্যাংকে স্থায়ী কর্মীর সংখ্যা হচ্ছে এক লাখ ৮৬ হাজারের ওপরে। এর মধ্যে বেসরকারি খাতের ৪৩টির মধ্যে বিদেশি মালিকানাধীন ৯ ব্যাংককেও নতুন নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে হবে। আগামী ১ এপ্রিল থেকে বাস্তবায়িত হলেও বাংলাদেশ ব্যাংক চেয়েছিল ১ মার্চ থেকে বাস্তবায়ন শুরু করতে। পরে ব্যাংক উদ্যোক্তাদের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকস (বিএবি) সময় চায় বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে। এমন অনুরোধে এক মাস সময় পিছিয়ে দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। এছাড়া চতুর্থ প্রজন্মের ব্যাংকগুলোকে কিছুটা ছাড় দেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্ধারণ করে দেয়া নতুন বেতন-ভাতা কাঠামো অনুযায়ী, কোনো ব্যাংকের শিক্ষানবিশকালের জন্য জেনারেল বা সাধারণ ব্যাংকিং শাখার কর্মীদের ন্যূনতম বেতন হবে ২৮ হাজার টাকা। আর ক্যাশ শাখার জন্য এটি হবে হবে ২৬ হাজার টাকা। আর শিক্ষানবিশকাল শেষে জেনারেল শাখার কর্মকর্তাদের সর্বনিম্ন বেতন-ভাতা হবে ৩৯ হাজার ও ক্যাশ শাখার বেলায় হবে ৩৬ হাজার টাকা।

ব্যাংকের কর্মচারী বা চুক্তির ভিত্তিতে নিয়োগ হওয়া অফিস সহায়কদের সর্বনিম্ন বেতন-ভাতা হবে আঞ্চলিক ভিত্তিতে। ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুরসহ সব বিভাগীয় শহরের জন্য বেতন-ভাতা ঠিক করা হয়েছে ন্যূনতম ২৪ হাজার টাকা, জেলা শহরের জন্য ২১ হাজার টাকা ও উপজেলার জন্য ১৮ হাজার টাকা। অফিস সহায়ক ও সিকিউরিটি গার্ডদের এই বেতন দিতে হবে।

এদিকে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বেঁধে দেয়া ন্যূনতম বেতনের চেয়েও বেশি দিতে যাচ্ছে স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক। কর্মীদের জন্য ন্যূনতম বেতন নির্ধারণ করেছে ৪২ হাজার টাকা। একই পথে গেছে সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক। তারা নির্ধারণ করেছে ন্যূনতম ৪৪ হাজার টাকা। নিন্ম পর্যায়ে বেতন বৃদ্ধিতে ওপরের সারির পদেরও বেতন বৃদ্ধি করতে হচ্ছে ব্যাংকগুলোকে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী, নতুন বেতন কাঠামোয় সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংকের প্রবেশনারি অফিসারের বেতন ৪০ হাজার থেকে বেড়ে হবে ৪৮ হাজার টাকা। জুনিয়র অফিসারের ৪০ হাজার থেকে বেড়ে ৪৭ হাজার টাকা, ট্রেইনি জুনিয়র অফিসারের বেতন ২২ হাজার থেকে বেড়ে ৩২ হাজার টাকা এবং অ্যাসিস্ট্যান্ট অফিসারের বেতন ৩৬ হাজার থেকে বেড়ে ৩৯ হাজার টাকা হবে। ট্রেইনি অ্যাসিস্ট্যান্ট অফিসারের বেতন ২২ হাজার থেকে বেড়ে ২৮ হাজার টাকা, ক্যাশ শাখার ক্ষেত্রে ২২ হাজার থেকে বেড়ে ২৬ হাজার টাকা করা হয়েছে।

এ সম্পর্কিত আরও দেখুন

Leave a Reply

এ সপ্তাহের জনপ্রিয় পোস্ট

সর্বশেষ পোস্ট