রেল সেবা অ্যাপঃ পরিচিতি, সুবিধা এবং টিকিট কাটার নিয়ম!

0

টিআইবিঃ টিকিট কেনার ভোগান্তি কমাতে ‘রেল সেবা’ নামে নতুন একটি অ্যাপের উদ্বোধন করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। ২৮ এপ্রিল, ২০১৯ কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে অ্যাপটির উদ্বোধন করা হয়।

অ্যাপটির নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের বরাতে জানা গেছে, প্রাথমিক অবস্থায় নতুন এই অ্যাপটির মাধ্যমে এক সঙ্গে ৫০০ যাত্রী ট্রেনের টিকিট কাটতে পারবেন। পরবর্তীতে অবকাঠামোগত পরিবর্তন আসলে এই সংখ্যা আরও বৃদ্ধি পেতে পারে।

এছাড়া অ্যাপটির মাধ্যমে ঘণ্টায় ১৫ হাজার টিকিট কাটা যাবে। অর্থাৎ প্রতি মিনিটে আড়াইশ টিকিট কাটা যাবে। একই সঙ্গে একজন যাত্রী সর্বোচ্চ চারটি টিকিট কিনতে পারবেন।

সংশ্লিষ্টরা আরও জানান, মোট টিকিটের ৫০ শতাংশ পাওয়া যাবে মোবাইলের মেসেজ বা অনলাইনের মাধ্যমে। এর মধ্যে কিছু সংখ্যক মেসেজের মাধ্যমে, কিছু ওয়েবসাইট ও কিছু পাওয়া যাবে এই ‘রেল সেবা’ অ্যাপের মাধ্যমে।

রেল সেবা অ্যাপ এর সুবিধাঃ

  • রেলের টিকিট ক্রয়ের সুবিধার্থে ‘রেল সেবা’ নামে মোবাইল অ্যাপ চালু করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে।
  • সব আন্তঃনগর ট্রেনের ৫০ শতাংশ টিকিট এখন থেকে অ্যাপ, মোবাইল ও অনলাইনের মাধ্যমে পাওয়া যাবে।
  • এই অ্যাপের মাধ্যমে একসঙ্গে ৫০০ যাত্রী ট্রেনের টিকিট সংগ্রহ করতে পারবেন। এছাড়া প্রতি ঘণ্টায় অ্যাপের মাধ্যমে ১৫ হাজার টিকিট সংগ্রহ করা যাবে।
  •  আগের মতোই একজন যাত্রী অ্যাপের মাধ্যমে সর্বোচ্চ চারটি টিকিট নিতে পারবেন।
  • এছাড়াও অ্যাপ থেকে নির্দিষ্ট গন্তব্যের ভাড়া, টিকিট প্রাপ্যতা, ট্রেন রুট, সময়সূচি, ট্রেনভিত্তিক বিরতি স্টেশনসমূহের নাম ও সময়সূচি, জার্নি হিস্ট্রি, কোচ ভিউ, সিট পছন্দ করা যাবে।
  • ট্রেনের ভেতরে অ্যাপ থেকে খাবারও অর্ডার দেয়া যাবে। প্রয়োজনে অ্যাপের মাধ্যমে রেল পুলিশের সহায়তা নিতে পারবেন যাত্রীরা।
  • স্টেশন থেকে ট্রেনের দূরত্ব, ট্রেনের অবস্থান ও স্থানীয় পরিবহন ব্যবস্থা সম্পর্কেও এই অ্যাপের মাধ্যমে জানা যাবে।
  • রেলসেবা অ্যাপটি বর্তমানে সব ধরনের অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলের মাধ্যমে ব্যবহার করা যাবে। খুব শিগগিরই আইফোন ভার্সন চালু করা হবে।
  • ইতোমধ্যে জাতীয় কল সেন্টারের (৩৩৩) সঙ্গে বাংলাদেশ রেলওয়ের তথ্যসমূহ যুক্ত করা হয়েছে। ফলে জাতীয় কল সেন্টার ৩৩৩ থেকে বাংলাদেশ রেলওয়ে সম্পর্কিত যেকোনো তথ্য পাওয়া যাবে।
  • রেল ভ্রমণ শেষে অ্যাপের মাধ্যমে যাত্রীরা তাদের মতামতও দিতে পারবেন।

রেল সেবা অ্যাপ দিয়ে ট্রেনের টিকিট কাটবেন যেভাবে?

  • প্রথমে এই ঠিকানা থেকে অ্যাপটি ডাউনলোড করুন।
  • এরপর অ্যাপটি খুলে নাম, মোবাইল নম্বর, ই-মেইল, ঠিকানা, পোস্ট কোড, জাতীয় পরিচয়পত্র বা জন্মনিবন্ধন নম্বর, জন্মতারিখ ও পাসওয়ার্ড দিয়ে ‌’সাইন আপ’ করুন।
  • যদি ওয়েবসাইটে আগেই অ্যাকাউন্ট খোলা থাকে তাহলে সেই মোবাইল নম্বর ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করুন।
  • Purchase ট্যাবে ক্লিক করুন।
  • এবার From Station ট্যাব থেকে যে স্টেশন থেকে ট্রেনে ভ্রমণ করতে চান তা নির্বাচন করুন।
  • To Station ট্যাব থেকে যে স্টেশনে যেতে চান তা নির্বাচন করুন।
  • Journey Date থেকে ভ্রমণের তারিখ নির্বাচন করুন।
  • এরপর Search Train এ ক্লিক করুন।
  • এখানে আপনার গন্তব্যের সবগুলো ট্রেনের তালিকা দেখতে পাবেন। তালিকা থেকে পছন্দের ট্রেনের আসন, টিকিট সংখ্যা, পছন্দের সিট (যদি থাকে) নির্বাচন করুন।
  • সবকিছু দেখে Pay Now ট্যাবে ক্লিক করুন। বাংলাদেশের যে কোন ভিসা কার্ড, মাস্টার কার্ড, এমেক্স কার্ড বা বিকাশ দিয়ে নির্ধারিত ফি পরিশোধ করে টিকিট বুঝে নিন।
  • ই-মেইল থেকে টিকিটের প্রিন্ট নিয়ে নিন। এই প্রিন্ট কপি দিয়েই ট্রেনে ভ্রমণ করতে পারবেন। চাইলে নির্ধারিত স্টেশন থেকে প্রিন্ট কপি দিয়ে ট্রেনের প্রিন্টেট টিকিটও সংগ্রহ করে ভ্রমণ করতে পারবেন।

Leave a Reply