ন্যূনতম বেতন কাঠামো মার্চেই কার্যকর, ১৫ ব্যাংককে ছাড়

চতুর্থ প্রজন্মের ৯টি ও দুর্বল মানের ২ ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ন্যূনতম বেতন কাঠামো কার্যকরের সময় পিছিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। আর প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় প্রজন্মের ব্যাংকগুলোকে নতুন এ বেতন-ভাতা আগামী মার্চ থেকেই কার্যকর করতে হবে। পাশাপাশি ক্যাশ ও জেনারেল শাখার কর্মকর্তাদের বেতন-ভাতাও আলাদা করে দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এ ছাড়া উপজেলা, জেলা ও বিভাগীয় শহরের অফিস সহায়কদের জন্যও বেতন-ভাতা আলাদা করে দেওয়া হয়েছে।

টেকনো ইনফো বিডি‘র প্রিয় পাঠক: প্রযুক্তি, ব্যাংকিং ও চাকরির গুরুত্বপূর্ণ খবরের আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ টেকনো ইনফো বিডি তে লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন।

ব্যাংকের উদ্যোক্তা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের সঙ্গে আলোচনার পর কেন্দ্রীয় ব্যাংক গতকাল মঙ্গলবার এ–সংক্রান্ত নতুন প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নতুন প্রজ্ঞাপনে চতুর্থ প্রজন্মের মেঘনা, মিডল্যান্ড, মধুমতি, পদ্মা ব্যাংক, এনআরবি ব্যাংক, এনআরবিসি ব্যাংক, গ্লোবাল ইসলামী, সাউথ বাংলা ও ইউনিয়ন ব্যাংক এবং চতুর্থ প্রজন্মের পরে অনুমোদন পাওয়া বেঙ্গল কমার্শিয়াল, কমিউনিটি, সীমান্ত, সিটিজেন এবং দুর্বল মানের বাংলাদেশ কমার্স ও আইসিবি ইসলামিক ব্যাংকের জন্য আলাদা নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। আর্থিক অবস্থা বিবেচনায় নতুন এবং দুর্বল ব্যাংকগুলোকে এই সুযোগ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

আরও দেখুন:
ব্যাংকারদের সর্বনিম্ন বেতন নিয়ে সংশোধিত নির্দেশনা
ব্যাংকারদের সর্বনিন্ম ও সর্বোচ্চ বেতন কাঠামোর ব্যবধান ৫৮ গুণ
এন্ট্রি লেভেলের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন ভাতাদি নির্ধারণ ও বাস্তবায়ন প্রসঙ্গে
ব্যাংকারদের বেতন ও ছাঁটাই ইস্যুতে অনড় কেন্দ্রীয় ব্যাংক

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, এই ব্যাংকগুলোর স্থায়ী জেনারেল ব্যাংকিংয়ের কর্মকর্তাদের ন্যূনতম বেতন-ভাতা হবে ৩৯ হাজার টাকা, আর ক্যাশ কর্মকর্তাদের বেতন-ভাতা হবে ৩৬ হাজার টাকা। এর মধ্যে মূল বেতনের বাড়তি অংশ আগামী এপ্রিল মাস থেকেই দিতে হবে, আর বর্ধিত ভাতা কার্যকর করতে হবে ২০২৩ সালের এপ্রিল থেকে। তবে ব্যাংক চাইলে আগামী এপ্রিল থেকেই বেতন-ভাতা দুটিই দিতে পারবে। নতুন কর্মকর্তাদের বেতন-ভাতা অনুযায়ী অন্যদেরও বেতন-ভাতা সমন্বয় করতে হবে। চতুর্থ প্রজন্ম, নতুন ও দুর্বল মিলিয়ে ১৫টি ব্যাংকে শিক্ষানবিশ হিসেবে নিয়োগপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের সর্বনিম্ন বেতন হবে ২৮ হাজার টাকা ও ক্যাশ কর্মকর্তাদের ২৬ হাজার টাকা। নতুন এ বেতন-ভাতা কার্যকর করতে গিয়ে পুরোনো বেতনকাঠামোর সঙ্গে যে পার্থক্য হবে, তার ৫০ শতাংশ আগামী এপ্রিলে এবং বাকি ৫০ শতাংশ ২০২৩ সালের এপ্রিল থেকে দেওয়া যাবে।

পুরোনো ব্যাংকগুলোর শিক্ষানবিশ ও স্থায়ী কর্মীদের বেতন-ভাতাও একই হবে, যার পুরোটাই আগামী এপ্রিল থেকে দেওয়া শুরু করতে হবে। একইভাবে অন্য ধাপের কর্মকর্তাদের বেতন-ভাতা সমন্বয় করে এপ্রিল থেকে প্রদান করতে হবে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রজ্ঞাপনে আরও বলা হয়েছে, নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুরসহ সব বিভাগীয় শহরের অফিস সহায়ক/পরিচ্ছন্নতাকর্মী/নিরাপত্তাকর্মী ও দৈনিক ভিত্তিতে নিয়োগ করা কর্মচারীদের ন্যূনতম বেতন-ভাতা হবে ২৪ হাজার টাকা। একই পদে অন্যান্য জেলা শহরের জন্য ন্যূনতম বেতন-ভাতা হবে ২১ হাজার টাকা ও উপজেলা শহরের জন্য ১৮ হাজার টাকা। তৃতীয় পক্ষের মাধ্যমে সেবা গ্রহণ করে এমন কর্মচারীদেরও বেতন-ভাতা একইভাবে নির্ধারণ করতে হবে। আর সে জন্য কর্মচারী সরবরাহকারী তৃতীয় পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে নিতে হবে।

এর আগে গত ২০ জানুয়ারি বেসরকারি খাতের ব্যাংক কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য প্রথমবারের মতো সর্বনিম্ন বেতন-ভাতা বেঁধে দিয়ে নির্দেশনা জারি করে বাংলাদেশ ব্যাংক। পাশাপাশি লক্ষ্য পূরণে ব্যর্থতা ও অদক্ষতার অজুহাতে কাউকে চাকরিচ্যুত করা যাবে না বলেও ওই নির্দেশনায় বলা হয়। এ ছাড়া ব্যাংকারদের চাকরির সুরক্ষায় আরও বেশ কিছু পদক্ষেপ নেয় বাংলাদেশ ব্যাংক।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button