ব্যাংক খোলা রেখে সামাজিক দূরত্ব সৃষ্টি সম্ভব কি?

0

ব্যাংক খোলা রেখে সামাজিক দূরত্ব সৃষ্টি সম্ভব নয়।
সবকিছু ছুটি হয়ে যাওয়ায় সবাই ব্যাংকে চলে আসবে। কেউ একজন আপাত সুস্থ থাকলেও সুপ্ত জীবাণু দুর্বল যে কাউকে মারাত্মক ঝুঁকিতে ফেলতে পারে।

আমরা কিসে যাতায়াত করব? আমাদের পরিবার এবং আমাদের সংস্পর্শে আসা ক্লায়েন্টসহ পুরো কমিউনিটি ঝুঁকিতে থাকবে। ব্যাংকের অভ্যন্তরে ক্লায়েন্টদের কখনোই আলাদাভাবে সার্ভিস দেয়া সম্ভব নয়। স্যানিটাইজিং বা গ্লাভস/মাক্স পরেও ঝুঁকি মুক্ত থাকা সম্ভব নয়। কে কি বহন করছে তার পরিমাপণ যেমনি সম্ভব নয়, তেমনি ব্যাংকারের কারণে তার পরিবার এবং ক্লায়েন্টের কারণে তার পরিবার ঝুঁকিতে থাকবে।

কোন ক্লায়েন্ট যেমন কোথা হতে সফর ফেরত জানা সম্ভব নয়, তেমনি ব্যাংক কর্মীও ক্লায়েন্টের জন্যে নিরাপদ কিনা কে বলবে?

সামাজিক দুরত্ব সৃষ্টির মাধ্যমে আশু ভাল রেজাল্ট পেতে হতে সম্পূর্ণভাবে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। এটি করে তাইওয়ান, দক্ষিণ কোরিয়া, জাপানসহ পূর্ব এশিয়ার দেশ সমূহ ভাল রেজাল্ট পেয়েছে।

ইরান ও ইউরোপের দেশ সমূহ উন্নত ও লজিস্টিক সক্ষমতার দেশ হওয়ার পরেও আজকের ম্যাসেকার অবস্থার জন্যে দায়ী ওদের সামাজিক দূরত্ব সৃষ্টির উদাসিনতা, অবজ্ঞা করা, দেরী করা।

আল্লাহ মাফ করুন। আমরা অনেক পিছিয়ে আছি। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় নিশ্চয় আমরা সফল হব।

আল্লাহ যদি দিন ফেরত দেন তবে আমরা ভবিষ্যতে অতিরিক্ত পরিশ্রম করে সম্ভাব্য অর্থনৈতিক ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে প্রয়োজনে সবাই এগিয়ে আসব। ইনশাআল্লাহ।

এভাবে পরিবারকে টেনশনে রেখে নিজের সার্ভিস এভিলিটি ধরে রাখা সত্যিই মুশকিল। এটি বৈশ্বিক পরিস্থিতি। সবাই যেভাবে ভাল রেজাল্ট পেয়েছে, সেভাবেই নিশ্চই আগাবো। ইমার্জেন্সী ইজ ইমার্জেন্সী। ইমার্জেন্সীতে একটু অসুবিধা হলেও সবার স্বার্থেই ইমার্জেন্সী ব্যবস্থাই নেওয়া উচিৎ।

আশাকরি, সংশ্লিষ্ট পক্ষ হতে যথাযথ ব্যবস্থা ও প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। আল্লাহ আমাদের সহায় হোন। আমীন।

(সংগৃহীত)