বাংলাদেশ ব্যাংকে পত্র প্রেরণের ক্ষেত্রে পরিপালনীয় নির্দেশনা

0

যে সব আবেদন ব্যাংকগুলো নিজেরাই নিষ্পত্তি করতে পারবে সেই সব আবেদন কেন্দ্রীয় ব্যাংকে পাঠানো যাবে না। কেবল যেসব আবেদন নিষ্পত্তিযোগ্য নয়, সেই সব আবেদন বাংলাদেশ ব্যাংকে পাঠানো যাবে।

গতকাল বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রা নীতি বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করে বাংলাদেশে কার্যরত সকল তফসিলি ব্যাংকসমূহের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, ব্যাংক কর্তৃক নিষ্পন্নযোগ্য নয় গ্রাহকের এমন আবেদন যৌক্তিকতা উল্লেখ করে সিদ্ধান্তের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকে পাঠানোর নির্দেশনা থাকলেও বৈদেশিক মুদ্রায় লেনদেনে নিয়োজিত অনুমোদিত ডিলার ব্যাংকগুলো (এডি) নিষ্পত্তিযোগ্য আবেদনপত্রও বাংলাদেশ ব্যাংকে পাঠাচ্ছে।

শুধু তাই নয়, গ্রাহকের এসব আবেদনপত্রের বিষয়ে এডিদের মতামত, সুপারিশ, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র, স্বাক্ষরকারী ব্যাংক কর্মকর্তার পদবি ও ফোন নম্বর উল্লেখ না করেই বাংলাদেশ ব্যাংকে পাঠানো হচ্ছে। এতে গ্রাহক হয়রানিসহ কার্য সম্পাদনে জটিলতা সৃস্টি হচ্ছে।

এ জটিলতা নিরসনে বিদ্যমান নীতিমালা ও নির্দেশনা পরিপালনের জন্য ব্যাংকগুলোকে পুনরায় নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

এতে আরও বলা হয়েছে, বিদ্যমান নীতিমালার আওতায় যে সব আবেদনপত্র নিষ্পত্তি করা সম্ভব নয়, সে ক্ষেত্রে প্রেক্ষাপট বর্ননা করে মতামত ও সুপারিশসহ সংশ্লিস্ট শাখা বা বিভাগীয় প্রধান কিংবা দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার যৌথ স্বাক্ষরে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে ফরওয়ার্ডিং পত্রের মাধ্যমে পাঠাতে হবে।

প্রেরিত পত্রটি ব্যাংকের সংশ্লিস্ট শাখা বা বিভাগের পূর্ণ ঠিকানা সম্বলিত অফিসিয়াল প্যাডে দিতে হবে। পত্রের সূত্র নম্বর ও পাঠানোর তারিখ, পূর্ণ স্বাক্ষরসহ স্বাক্ষরকারী কর্মকর্তার নাম ও পদবি, এসএস নম্বর, পিএ নম্বর, পিওএ নম্বর, এফএক্স নম্বর বা এফএস নম্বর (যে নামেই অভিহিত করা হোক না কেন), সরাসরি টেলিফোন নম্বর ও মোবাইল নম্বর এবং ইমেইল ঠিকানা সুস্পস্টভাবে উল্লেখ করতে হবে। সংশ্লিস্ট কর্মকর্তার অফিসিয়াল সিল ব্যবহার করতে হবে।

Leave a Reply