HTTP 404 Not Found কি? এর কারণ ও করণীয়?

0
277

টিআইবিঃ ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের কমবেশি সবাই ‘HTTP 404 Not Found বা 404 error’ বার্তাটির সঙ্গে পরিচিত। ইন্টারনেটে থাকা কোন তথ্য যখন নির্দিষ্ট ঠিকানায় থাকে তখন সেই তথ্য বা ফাইলটি হাইপারলিংক হিসেবে থাকে। কোন কারণে যদি ওই তথ্য মুছে যায় বা স্থানান্তর করে ফেলা হয়, তখন ‘৪০৪-পাওয়া যায়নি’ বার্তাটি দেখা যায়।

৪০৪ একটি HTTP বা Hyper Text Transfer Protocol এর প্রতিক্রিয়া সংখ্যা। ১৯৮৯ সালে স্যার টিম বার্নাস লি ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব (Www) আবিষ্কার করার আগে ছোট পরিসরের কম্পিউটার নেটওয়ার্ক এর হাইপারলিংকে থাকা তথ্য হালনাগাদ করা সহজ ছিল। কিন্তু ওয়েবে সারা বিশ্বের সব তথ্য হালনাগাদ রাখাটা বেশ কষ্টসাধ্য হয়ে দাঁড়ায়। অর্থাৎ কোনো তথ্য মুছে ফেললে অথবা সরিয়ে নিলে তা খুঁজে পাওয়াটা প্রায় অসাধ্য হয়ে ওঠে।

এধরনের সমস্যার জন্য 404 Not Found বা ৪০৪-পাওয়া যায়নি ছাড়াও আরো কিছু মেসেজ আমাদের কাছে আসতে পারে। যেমনঃ
– Error 404
– The requested URL [URL] was not found on this server
– Error 404 Not Found
– HTTP 404 Not Found
– 404 Page Not Found

কিভাবে ৪০৪ সংখ্যাটি এল?

৪০৪-এর মত আরও প্রায় ডজন খানেক সংখ্যা রয়েছে, যেগুলোকে HTTP ‘প্রতিক্রিয়া সংখ্যা’ বলা হয়। হাইপারলিংকে ঢুকলে নেটওয়ার্কে তাদের প্রতিক্রিয়াকে বিভিন্ন সংখ্যায় প্রকাশ করা হয়। এক থেকে পাঁচ (যেমন, ১০১, ৫২০) পর্যন্ত সংখ্যা দিয়ে শুরু বিভিন্ন ‘প্রতিক্রিয়া সংখ্যা’ রয়েছে।

১ দিয়ে শুরু হওয়া সংখ্যাগুলো হাইপারলিংকের তথ্য,
২ হাইপারলিংকের সফলতা,
৩ হাইপারলিংকের ফেরত যাওয়া,
৪ হাইপারলিংকের ত্রুটি এবং
৫ দিয়ে শুরু হওয়া সংখ্যাগুলো হাইপারলিংকের সার্ভারের ত্রুটি নির্দেশ করে।
এর বাইরেও কিছু কম প্রচলিত প্রতিক্রিয়া সংখ্যাও রয়েছে।

কেন এ ধরনের ঘটনা ঘটে?

আসুন এবার জেনে নেই কেন নেটওয়ার্ক থেকে এই ধরনের প্রতিক্রিয়া আমরা পেয়ে থাকি।

ভুল ঠিকানায় নক করলেঃ

আমি যদি কোন দিন নূরকে খুঁজতে গিয়ে রিয়ার বাসার দরজায় নক করি তবে কি হবে? নূরকে পাব? না, বরং বকুনি খেতে হতে পারে। তেমনি ইন্টারনেটে যখন আমরা ভুল ওয়েব অ্যাড্রেস বা ভুল URL দিয়ে সার্চ করি তখন সার্ভার আমাদের এই ধরনের মেসেজ দেয়।

ওয়েব পেজ সরিয়ে ফেলা হলেঃ

অনেক সময় দেখা যায় ওয়েবসাইট কর্তৃপক্ষ কাঙ্ক্ষিত পেজটি বা পুরো ওয়েবসাইটটি-ই সরিয়ে ফেলতে পারে কিন্তু তারা নতুন লিঙ্কটি আর রিডিরেক্ট (Ridirecting) করেনি। সেক্ষেত্রে আপনি কখনই সেটা খুঁজে পাবেন না। তখন এই ধরনের মেসেজ সামনে আসতে পারে।

সরকার নিয়ন্ত্রণ আরোপ করলেঃ

সরকার বা টেলিকমিউনিকেশন নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ চাইলে কোন নির্দিষ্ট ওয়েবসাইট বা ওয়েবপেজ দেশের ভেতর ব্লক করে দিতে পারে। যেমন বাংলাদেশে অনেক পর্ণ সাইট নিষিদ্ধ, এসব ক্ষেত্রে এই ধরনের অবস্থার সম্মুখীন হতে পারেন।

ওয়ার্ডপ্রেস এর নতুন কোন প্লাগইন ইনস্টলের কারনে:

যারা নতুন প্লাগইন ইনস্টলের জন্য ওয়ার্ডপ্রেস এর সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করে সার্চ করে তারপর সরাসরি প্লাগইন ইনস্টল করে তাদের প্রায় সময় প্লাগইন ওয়ার্ডপ্রেস এর সাথে মিল না থাকার কারনে 404: Page Not Found বা সার্ভার সমস্যা হতে দেখা যায়।

তাছাড়া অনেক সময় আপলোড করে ইনস্টল করার সময় প্লাগইন এ বাগ থাকার কারনেও এ সমস্যা দেখা দেয়।

আবার যে সব প্লাগইন .htaccess ফাইলটিকে এডিট করার দরকার পড়ে সে সব প্লাগইন ইনস্টল করার সময় এ সমস্যায় বেশি পড়তে হয়।

এই অবস্থায় কি করা যেতে পারে?

আমরা অনেক সময় বুঝে উঠতে পারিনা এই অবস্থায় কি করা উচিত? চলুন দেখে নিই এ অবস্থায় কিছু করণীয়…

ট্রাই এগেইনঃ

404 not found দেখালে প্রাথমিক কাজ হতে পারে রিট্রাই করা। কীবোর্ডে F5 প্রেস করে অথবা সার্চ বারের পাশে রিলোড পেজ অপশন ক্লিক করে দেখতে পারেন কাজ হয় কিনা। কারণ অনেক সময় সঠিক অ্যাড্রেস দেয়ার পরও ইন্টারনাল এররের কারণে সমস্যা হতে পারে যা অল্প সময় পরেই ঠিক হয়ে যায়।

রিচেক করুনঃ

অনেক সময় আমরা ভুল URL (Uniform Resource Locator) দিয়ে থাকি। এজন্য আপনার দেয়া URL টি আবার চেক করুন, কোথাও ভুল হচ্ছে কিনা। সম্ভবত আপনি সমাধান পেয়ে গেছেন।

ট্রায়াল এন্ড এররঃ

আপনার দেয়া যে URL টি সার্চ বারে শো করছে সেটার একদম ডান দিক থেকে ১/২/৩ টি ক্যারেক্টার সরিয়ে ফেলুন, দেখেন কোন কাজ হয় কিনা। যেমনঃ https://www.healtholino.com/angel-number-404-meaning-and-symbolism/en এটা দিয়ে সার্চ দিলে Ooops…error 404 শো করে। কিন্তু ডানদিক থেকে en কেটে দিলে কাঙ্ক্ষিত সাইটে যাওয়া যায়।

ক্লিয়ার কুকিস অথবা ক্যাশেঃ

অনেক সময় দেখবেন কোন একটা সাইট আপনার ফোনের ব্রাউজার দিয়ে রিচ করতে পারলেও ডেস্কটপে এরর দেখাচ্ছে। সেক্ষেত্রে ভাল বুদ্ধি হল cookies অথবা cache clear করা। আপনার ব্রাউজারের সেটিংসে গিয়ে privacy & security অপশনে গিয়ে দেখবেন clear browsing data নামে একটা ঘর আছে, সেখানেই দেখবেনঃ clear history, cookies, cache & more এখানে ক্লিক করলেই কাজ হবে।

ডিএনএস সার্ভার ব্যবহার করুনঃ

DNS Server হল এমন একটা সার্ভার যেটা আমাদের IP (Internet Protocol) Address গুলো সংরক্ষণ করে। IP কি? আমরা যখন কোন ওয়েবসাইট কে দেখি বা চিনি, সেটাকে আমরা চিনি তার অ্যাড্রেস বা URL দিয়ে কিন্তু কম্পিউটার অক্ষর নয়, বুঝে সংখ্যা। যেমনঃ www.amazon.com এর আইপি অ্যাড্রেস হল- 72.21.215.90। অনেক সময় ISP (internet service provider) বা সরকার কোন সাইটকে ব্লক করে রাখতে পারে। সেক্ষেত্রে ভিন্ন DNS server ব্যবহার করে আপনি কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে যেতে পারেন।

সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করুনঃ

কোন ভাবেই যদি সাইটের দেখা না পান তবে ফেসবুক বা অন্য কোন সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপে গিয়ে ঐ প্রতিষ্ঠানের পেজ সার্চ করুন। সেখানে পেয়ে গেলে সরাসরি ইনবক্স করে হেল্প নিন।

প্লাগইন মুছে ফেলুনঃ

কোন প্লাগইন ইনস্টল দেয়ার পরে যদি 404 not found সমস্যার সম্মুখীন হল তবে .htaccess ফাইলকে এডিট করা বা আগের কোন ব্যাকআপ থাকলে সেখান থেকে .htaccess ফাইলটি রিস্টোর করতে হবে। এটাতে কাজ না হলে FTP/Control Panel থেকে ইনস্টল কৃত প্লাগইনটি মুছে দিন। আসা করি এতে কাজ হয়ে যাবে।
সূত্রঃ জাকিরের টেক ডায়েরি

Leave a Reply