জেনে নিন স্মার্টফোন ব‍্যবহারে ১০টি সাবধনতা!

0
151

টিআইবিঃ আপনি নিশ্চিন্তে স্মার্টফোনে ছবি তুলছেন, ফোন থেকেই ফেসবুক করছেন, এমক‍্যাশ বা বিকাশ থেকে টাকা মেটাচ্ছেন, গান শুনছেন। হঠাৎ দেখলেন আপনার ফোন হ্যাক হয়ে গিয়েছে। আপনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা হাওয়া হয়ে গিয়েছে।

ভাবতেই পারেন, আপনার ফোন নিয়ে চিন্তার কোন কারণ নেই। সাইবার সিকিউরিটি বিশেষজ্ঞ ও সাইবার পিস ফাউন্ডেশনের প্রধান বিনীত কুমার কিন্তু শোনাচ্ছেন সাবধানবানী।

চিভনিং অ্যালামনি ইন্ডিয়ার কলকাতা চ্যাপ্টারের আয়োজনে ‘সাইবার সিকিউরিটি: চ্যালেঞ্জেস অ্যান্ড অপারচুনিটিজ’ নিয়ে বলতে এসে বিনীত জানালেন, ‘‘ঘরের যেমন দরজা ও জানালা রয়েছে, তেমন ফোনেরও তাই রয়েছে। বাড়ির দরজা-জানালা যেভাবে সুরক্ষিত রাখতে হয়, তেমনই ফোনেরও সুরক্ষা নিয়ে ভাবতে হবে।’’

আজকাল ‘ভাইরাসের যুগ’ চলে গেছে বলেও দাবি করেন তিনি। তার বদলে এসেছে ‘বটস্’। কোন সাইট থেকে সাইবার অপরাধীরা হঠাৎ আপনার ফোনে কোন ‘বিপজ্জনক প্রোগ্রাম’ ঢুকিয়ে দেবে, আপনি বুঝতেই পারবেন না। বিনীতের কথায়, ‘‘আপনি হয়ত দেখলেন, আপনার ফোন খুব ধীরে কাজ করছে। আপনি ভাবতে পারেন, আপনার ফোনের মেমোরি ভর্তি হয়ে গেছে। কিন্তু দেখা গেল, কোনও লিঙ্কে ক্লিক করে আপনার ফোনে বটস্ নিয়ে এসেছেন আপনিই। সেই প্রোগ্রামগুলিই আপনার ফোনের তথ্য চুরি করছে।’’

কখনও ফোন স্বাভাবিক কাজ করলেও, পিছনে হয়তো অন্য কেউ আপনার ফোন চালাচ্ছে এমনটাও হতে পারে।

কিভাবে বাঁচাবেন নিজের ফোনকে। শুনে নিন কী বলছেন সাইবার বিশেষজ্ঞ বিনীত কুমার?

আজকাল স্মার্টফোনের মাধ্যমে ফ্রিজ থেকে শুরু করে ফ্যান, টিভি থেকে শুরু করে মাইক্রোওভেন, এমনকি দরজাও খোলা যাচ্ছে— কিন্তু স্মার্টফোনটিই হ্যাকড হয়ে গেলে নিজের বাড়িতেই হয়তো ঢুকতে পারবেন না, রান্নাঘরে রান্নাও করতে পারবেন না। এমন দিনও আসতে পারে।

কিন্তু বিনীতের পরামর্শ, ‘‘স্মার্টফোন ছাড়া তো আমাদের চলবে না। তাই একদম ব্যবহার বন্ধ করা চলে না। ফলে ফোন ব্যবহার করার সময়ে কিছু সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত।’’

কী কী সাবধনতা মেনে চলবেন:

১। ফোনের একটি শক্তপোক্ত পাসওয়ার্ড রাখুন। প্যাডলক ব্যবহার করুন।

২। অ্যান্ড্রয়েড হোক বা আইওএস, যেরকমই ফোনই ব্যবহার করুন না কেন, তা নিয়ম করে আপডেট করুন।

৩। শুধু ফোনই নয়, ফোনের মধ্যে যে অ্যাপ্লিকেশনগুলো রয়েছে (যেমন পেটিএম, মিডিয়া প্লেয়ার, ইত্যাদি) তাও নিয়মিত আপডেট করুন।

৪। ফেসবুক বা জিমেইল যদি ফোনে ডাউনলোড করে থাকেন, তাহলে অবশ্যই সেগুলির ক্ষেত্রে ‘টু-স্টেপ’ ভেরিফিকেশন বা পাসওয়ার্ড ঠিক করুন।

৫। ফোনে যে কোনও সাইট খুলবেন না। ইউআরএল-এর কাছে লাল দাগ দেওয়া প্যাডলক দেখলে সেই সাইট এড়িয়ে যান। আজকাল আর ভাইরাস নয়, বটের মাধ্যমে আপনার ফোনের তথ্য চুরি হতে পারে।

৬। যে কোনও লিঙ্কে ক্লিক করবেন না।

৭। ফোনে কোনও ভাল অ্যান্টি-ভাইরাস ডাউনলোড করে রাখুন।

৮। কোনও অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করার আগে সাবধান। ভাল করে দেখে নিন, বিনা পয়সায় সেটি পেলেও বিশ্বাসযোগ্য কিনা।

৯। ফোনের দোকানে গিয়ে দোকানদারকে অ্যাপ ডাউনলোড করে দিতে বলবেন না।

১০। যে কোনও লোককে ফোন ব্যবহার করতে দেবেন না।

আশা করি উপরের সাবধানতা গুলো অবলম্বনের মাধ্যমে আপনার স্মার্টফোন  ব্যবহার আরও নিরাপদ ও সুন্দর হবে।

Leave a Reply