ফরেক্স ট্রেডিং

ফরেক্স ব্যবসা যেভাবে অগ্রসর হবেনঃ পর্ব-১৩ ফরেক্সে ক্যারিয়ার ও ফরেক্সে কাজের কৌশল

টিআইবিঃ আসসালামু আলাইকুম। বন্ধুরা আশা করছি সবাই আল্লাহর অশেষ রহমতে ভাল আছেন। আজ আপনাদের জন্য নিয়ে আসলাম বর্তমান সময়ের বহুল আলোচিত ফরেক্স ট্রেডিং নিয়ে। ফরেক্স বিজনেসের খুঁটি নাটি বিষয় নিয়ে ধারাবাহিক ২০ পর্বে ফরেক্স ট্রেডিং এর A-Z আলোচনা করা হচ্ছে। এই ধারাবাহিক পর্বগুলোতে ফরেক্স ব্যবসায় কিভাবে অগ্রসর হবেন তার বিস্তারিত বর্ননা দেয়ার চেষ্টা করবো। আমার এ লেখাগুলো বিভিন্ন ব্লগ থেকে সংগ্রহ করা। কথা না বাড়িয়ে চলুন ১৩তম পর্বে।

টেকনো ইনফো বিডি‘র প্রিয় পাঠক: প্রযুক্তি, ব্যাংকিং ও চাকরির গুরুত্বপূর্ণ খবরের আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ টেকনো ইনফো বিডি তে লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন।

ফরেক্সে ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ আছে। ফুল টাইম জব হিসেবে অনেকেই ফরেক্সে কাজ করছেন। বিভিন্ন বিদেশী প্রতিষ্ঠান তাদের পক্ষ হয়ে ট্রেডিং পরিচালনা করার জন্য দক্ষ ট্রেডার নিয়োজিত করে থাকে। তাদের বেতন আকাশচুম্বী। হাজার ডলারেরও বেশি তাদের বেতন। ফরেক্সে ভালো ট্রেডার হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করতে পারলে দেশে বসেই বিদেশী প্রতিষ্ঠানের জন্য ফরেক্স ট্রেডিং করে আয় করতে পারেন বিশাল অঙ্কের টাকা। ব্রোকার কোম্পানিগুলোতেও আছে কাজ করার সুযোগ। তবে আমাদের দেশের এখনো ভালো কোনো ফরেক্স ব্রোকারেজ হাউস গড়ে ওঠেনি। আমাদের পার্শববর্তী দেশ ভারতে বেশ কয়েকটি এ ধরনের ফার্ম গড়ে উঠেছে।

ফরেক্সে কাজের কৌশল
ফরেক্সে কাজ করে টিকে থাকার জন্য বেশ কিছু কৌশল প্রয়োগ করতে হয়। সেজন্য ট্রেড শুরু করার আগে আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে:
০১. কোন কারেন্সি পেয়ার নিয়ে আপনি ট্রেড করবেন?
০২. কতটুকু রিস্ক নেবেন?
০৩. লেভারেজ নেবেন কি নেবেন না?
০৪. কতটুকু লাভ করতে চান?
০৫. কত বিনিয়োগ করবেন?

সিদ্ধান্ত নেয়ার পরপর ট্রেড শুরু করার আগেই যা আপনার কিছু করার আছে তা হচ্ছে:
০১. যে ট্রেড করেছেন তার দাম বাড়বে না কমবে তার সম্পর্কে ধারণা রাখা;
০২. কিভাবে ট্রেডিং করবেন তার চার্ট বানিয়ে রাখা;
০৩. কী কারণে দামের হেরফের হতে পারে তার কারণ জেনে রাখা;
০৪. কতটুকু দাম বাড়তে বা কমতে পারে তার সম্পর্কে ধারণা থাকা এবং
০৫. ট্রেডটিতে কত লাভ বা লোকসান হলে তা বন্ধ করে দেবেন, তা নির্ধারণ করে রাখা।

মেটা ট্রেডার সফটওয়্যারের সাহায্যে কতটুকু লাভ হলে বা ক্ষতির দিকে কতটুকু মুভ করলে ট্রেড বন্ধ হয়ে যাবে, তা নির্ধারণ করে দেয়া যায়। এতে আপনাকে কমপিউটারের সামনে বসে তদারকি করতে হবে না, আপনার অনুপস্থিতিতেই আপনার নির্দেশ অনুযায়ী তা ট্রেড বন্ধ করে দেবে। এ পদ্ধতিকে টেক প্রফিট ও স্টপ লস বলে। এ ধরনের আরো অনেক কৌশল রয়েছে, যা কাজের অভিজ্ঞতার মাধ্যমে জানা যাবে।

চলবে……..।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button