ক্রেডিট কার্ডের বিল বিলম্বে পরিশোধ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংক সার্কুলার

0

করোনা ভাইরাসের কারণে ক্রেডিট কার্ড গ্রাহকদের সব ধরনের জরিমানা মওকুফের নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ক্রেডিট কার্ড গ্রাহকেরা আগামী ৩১ মে পর্যন্ত এ সুবিধা পাবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। তা ছাড়া গত ১৫ মার্চ থেকে যাদের বিল বকেয়া হয়েছে ও এজন্য জরিমানা আরোপ হয়েছে তা আদায় করা যাবে না।

আজ শনিবার দুপুরে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। করোনা ভাইরাসের কারণে ইতিমধ্যে বিভিন্ন দেশও একই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, বিশ্বের অন্যান্য দেশসহ বাংলাদেশে নভেল করোনা ভাইরাসের কারণে সৃষ্ট কভিড-১৯ রোগের বিস্তার ও সংক্রমণের কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ব্যবসা বাণিজ্যসহ অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড সীমিত হয়ে পড়েছে। ফলে জনসাধারনের আয় বর্ধণকারী কর্মকাণ্ডের ওপর এর নেতিবাচক প্রভাব লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

প্রজ্ঞাপনে আরো বলা হয়েছে, দেশে মার্চ মাসের শুরুতে কভিড-১৯ এ আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। পরবর্তীতে সাধারণ ছুটিও ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়াও গণপরিবহনও বন্ধ করা হয়েছে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া জনসাধারণকে বাড়ির বাইরে যাওয়া থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে অনেক ক্ষেত্রেই ক্রেডিটকার্ডধারী গ্রাহকদের পক্ষে বিল নির্ধারিত সময়ে পরিশোধ করা সম্ভব হচ্ছে না।

এমতবস্থায় ক্রেডিট কার্ড গ্রাহকদের আর্থিক সামর্থ্য ও চলমান অন্যান্য সীমাবদ্ধতার বিষয়টি বিবেটনায় যেসব নির্ধারিত সময়ে গ্রাহকদের বকেয়া বিল পরিশোধের শেষ তারিখ ১৫ মার্চ বা তার পরে সেসব গ্রাহকদের ক্ষেত্রে বিল পরিশোধে বিলম্ব হলে বিলম্ব ফি বা চার্জ বা দণ্ড সুদ অথবা অতিরিক্ত মুনাফা বা অন্য কোন ফি বা চার্জ (যে নামেই অভিহিত করা হোক না কেন) তা আদায় না করার জন্য নির্দেশনা দেয়া হলো।

তাছাড়া ১৫ মার্চের পরে ইতোমধ্যে কোন ক্রেডিট কার্ডের বিল বিলম্বে পরিশোধজনিত কারণে বিলম্ব ফি আদায় করা হয়ে থাকলে তা সংশ্লিষ্ট ক্রেডিট কার্ড গ্রাহককে ফেরত দিতে হবে। অথবা পরবর্তী বিলের সাথে সমন্বয় করতে হবে।

এ নির্দেশনা ১৫ মার্চ থেকে কার্যকর হবে ও ৩১ মে পর্যন্ত বলবৎ থাকবে বলেও প্রজ্ঞাপণে উল্লেখ করা হয়েছে।