হোমসাম্প্রতিকআর্থিক প্রতিষ্ঠানের আমানত-ঋণের সুদহার বেঁধে দিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক

আর্থিক প্রতিষ্ঠানের আমানত-ঋণের সুদহার বেঁধে দিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক

বাণিজ্যিক ব্যাংকের মতো ব্যাংক বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর (এনবিএফআই) আমানত ও ঋণের সর্বোচ্চ সুদহার বেঁধে দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এখন থেকে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো সর্বোচ্চ ১১ শতাংশ হারে সুদ নিতে পারবে। আর আমানত সংগ্রহ করতে পারবে সর্বনিম্ন ৭ শতাংশ সুদে।

আরও দেখুন:
ঋণের বাইরে অন্যান্য সম্পদে শ্রেণিকরণের পদ্ধতি নির্ধারণ
ব্যাংকের তছরুপের অর্থ অনাদায়: শতভাগ প্রভিশন রাখার নির্দেশ
দুর্নীতি, উচ্চ ব্যয়ের জেরে লোকসানে ৯ ব্যাংক

সোমবার (১৮ এপ্রিল) বাংলাদেশ ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও বাজার বিভাগ এ সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করেছে। চলতি বছরের ১ জুলাই থেকে নতুন বেঁধে দেওয়া এ সুদহার কার্যকর হবে।

টেকনো ইনফো বিডি‘র প্রিয় পাঠক: প্রযুক্তি, ব্যাংকিং ও চাকরির গুরুত্বপূর্ণ খবরের আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ টেকনো ইনফো বিডি তে লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, সাম্প্রতিক সময়ে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো আমানত সংগ্রহ ও ঋণ, লিজ বিনিয়ােগের সুদ বা মুনাফার হার পর্যালােচনায় দেখা গেছে, কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান বিদ্যমান বাজার হারের সঙ্গে সামঞ্জস্য বজায় না রেখে তুলনামূলক উচ্চ সুদ বা মুনাফার হারে আমানত সংগ্রহ করছে। ফলে অযৌক্তিকভাবে প্রতিষ্ঠানগুলোর তহবিল ব্যয় বাড়ছে। এর প্রভাবে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো উচ্চ মুনাফা বা সুদে ঋণ দিচ্ছে। ফলে ঋণ গ্রহীতার ঋণ পরিশােধের সক্ষমতা কমে যাচ্ছে, খেলাপি ঋণের পরিমাণ ও হার বাড়ছে এবং উৎপাদনসহ সামগ্রিক অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে।

এমন অবস্থায় আমানত সংগ্রহ ও ঋণ, লিজ, বিনিয়ােগের সুদ বা মুনাফার হার যৌক্তিকীকরণের মাধ্যমে বিনিয়ােগবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টির লক্ষ্যে আর্থিক প্রতিষ্ঠানের আমানতের উপর সুদ ও মুনাফার হার সর্বোচ্চ ৭ শতাংশ এবং সব ধরনের ঋণ/লিজ বিনিয়ােগের উপর সুদ মুনাফার কার্যকরী হার সর্বোচ্চ ১১ শতাংশ নির্ধারণ করা হলাে। এ নির্দেশনা ১ জুলাই ২০২২ তারিখ থেকে কার্যকর হবে।

নিদের্শনা কার্যকর হওয়ার পর নতুনভাবে নেওয়া আমানত এবং বিদ্যমান ও নতুনভাবে মঞ্জুরি করা সব ঋণ, লিজ, বিনিয়ােগের সুদ বা মুনাফার হার এই সার্কুলারের সর্বোচ্চ সুদ বা মুনাফার হারের বেশি হবে না।

তবে এ নিদের্শনা কার্যকর হওয়ার আগে নেওয়া আমানতের ক্ষেত্রে পূর্ব ঘােষিত সুদ বা মুনাফার হার ওই আমানতের বর্তমান মেয়াদপূর্তির পর এ নির্দেশনা অনুযায়ী নির্ধারিত হবে।

এর আগে গত ২৭ মার্চ বাংলাদেশ ব্যাংকের ৪২০তম বোর্ড সভায় এনবিএফআই সুদহার বেঁধে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

২০২০ সালের এপ্রিল থেকে ক্রেডিট কার্ড ছাড়া ব্যাংকের সব ধরনের ঋণের সুদহার ৯ শতাংশে বেঁধে দেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক। ফলে নতুন ও পুরোনো সব ধরনের ঋণের সুদের হার হয় ৯ শতাংশ। আর ২০২১ সালের আগস্টে মেয়াদি আমানতের সুদহার গড় মূল্যস্ফীতির চেয়ে কম না হওয়ার শর্ত আরোপ করে বাংলাদেশ ব্যাংক। ফলে আমানতের সর্বনিম্ন সুদহার হয় প্রায় ৬ শতাংশ। তবে শুরু থেকেই সুদহার বেঁধে দেওয়া নিয়ে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া দিয়ে আসছেন অর্থনীতিবিদ ও বিশেষজ্ঞরা। তারা বাজারব্যবস্থার ওপর সুদের হার ছেড়ে দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। তবে তা না করে এবার আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সুদহারও বেঁধে দিল ব্যাংক খাতের নিয়ন্ত্রণ সংস্থাটি।

এ সম্পর্কিত আরও দেখুন

Leave a Reply

এ সপ্তাহের জনপ্রিয় পোস্ট

সর্বশেষ পোস্ট