প্রণোদনার টাকা রাষ্ট্রীয় ব্যাংকের মাধ্যমে দেওয়ার আহ্বান

0

এসএমই, এমএসএমই এবং নগদ লেনদেন নির্ভর ব্যবসায়ীদের প্রণোদনার টাকা রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংকের মাধ্যমে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই)।

সংগঠনটির দাবি, বেশিরভাগ কুটির, এসএমই, এমএসএমই এবং নগদ লেনদেন নির্ভর ব্যবসাসমূহ ঋণ প্রাপ্তির আবশ্যকীয়তা পূরণের অভাবে অথবা বৃহৎ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসমূহের ন্যায় ব্যাংকের সাথে ততটা ভাল সুসম্পর্ক না থাকার দরুণ প্রণোদনার টাকা থেকে ঋণ প্রাপ্তিতে সমস্যার সম্মুখীন হতে পারে।

বুধবার (২২ এপ্রিল) অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল করোনাভাইরাস উদ্ভুত পরিস্থিতিতে অর্থনীতির সামগ্রিক বিষয়ে এক আলোচনায় এ আহ্বান জানান কালে ডিসিসিআই সভাপতি শামস মাহমুদ।

ডিসিসিআই সভাপতি বলেন, বিশেষ আর্থিক প্রণোদনা ঘোষণা সত্ত্বেও ব্যাংক থেকে ঘোষিত প্যাকেজের আওতায় কুটির, এমএসএমই খাতের ব্যবসায়ীদের ঋণ প্রাপ্তি সহজতর নাও হতে পারে। কারণ বেশিরভাগ কুটির, এসএমই, এমএসএমই এবং নগদ লেনদেন নির্ভর ব্যবসাসমূহ ঋণ প্রাপ্তির আবশ্যকীয়তা পূরণের অভাব রয়েছে। আবার বৃহৎ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসমূহের ন্যায় ব্যাংকের সাথে ততটা ভাল সুসম্পর্ক না থাকার দরুণ প্রণোদনার টাকা থেকে ঋণ প্রাপ্তিতে সমস্যার সম্মুখীন হতে পারে। তাই এমএসএমই’র প্রণোদনার টাকা এমএসএমই খাতের ব্যবসায়ীদের দেওয়ার ক্ষেত্রে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে সম্পৃক্ত করে ব্যবহার করা যেতে পারে।

এদিকে ক্রমান্বয়ে কিভাবে কিছু কিছু ব্যাবসা-বাণিজ্যিক কার্যক্রমকে পুণরায় চালু করা যায় এজন্য একটি পরিকল্পনা প্রণয়ন করতে ডিসিসিআই অর্থ মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করেছে।

সংগঠনটির আরো দাবির মধ্যে রয়েছে, নতুন এমএসএমই যাদের ব্যবসা পরিচালনার অভিজ্ঞতা সর্বোচ্চ ২ বছর বা তারও কম, তাদের ব্যবসা গ্যাস, বিদুৎ ও পানির বিল, ব্যাংক সংক্রান্ত অন্যান্য চার্জ এবং আমদানি, রপ্তানি সংক্রান্ত বন্দরের চার্জসমূহ মওকুফ করা। এ ধরনের এমএসএমই-দের দুই বছরের জন্য পুনঅর্থায়ন স্কীমের আওতায় ১ (এক) শতাংশ সুদে চলতি মূলধন হিসেবে ‘ব্যবসায় পুনরুদ্ধার তহবিল’ প্রদান করা যেতে পারে।

এছাড়া অপ্রচলিত খাত যেমন ভাসমান ব্যবসায়ী, হকার, ভাসমান দোকান, মুদি এবং এক ব্যক্তি নির্ভর একক ব্যবসায়ী যারা আছেন তাদের সামাজিক নিরাপত্তা বলয়ের আওতায় নিয়ে এসে ব্যবসা টিকিয়ে রাখতে স্বল্প সুদে ব্যবসা পুনর্গঠন জরুরি তহবিল দেওয়া যেতে পারে।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, অর্থ মন্ত্রণালয় ইতোমধ্যেই সকল স্তরের মানুষের কথা বিবেচনায় একটি অন্তর্ভুক্তিমূলক ও স্বচ্ছ আর্থিক প্রণোদনা প্রদানের লক্ষে নীতিমালা গ্রহণ করেছে। স্বল্প সুদে ঋণ গ্রহণের মাধ্যমে প্রণোদনা প্যাকেজকে আরও শক্তিশালী করার লক্ষে অর্থ মন্ত্রণালয় বিভিন্ন আন্তর্জাতিক উন্নয়ন অংশীদারদের সাথে যোগাযোগ রাখছে। খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকার ইতোমধ্যেই নানা পদক্ষেপ ও কর্মসূচি গ্রহণ করেছে, আর এসব পদক্ষেপ ও কর্মসূচি অত্যন্ত স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার সাথে নেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply