Wednesday, October 27, 2021

সময়মতো সুদহার কমায়নি ২৯ ব্যাংক

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ ব্যাংক গত বছরের এপ্রিল থেকে ক্রেডিট কার্ড ছাড়া সব ঋণের সুদহার সর্বোচ্চ ৯ শতাংশ নির্দিষ্ট করে দেয়। তবে অর্ধেক ব্যাংকই সেই নির্দেশনা মানেনি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের বিশেষ পরিদর্শনে এসেছে, দেশি-বিদেশি ২৯টি বেসরকারি ব্যাংক সময়মতো সুদ কমায়নি। এমনকি গত বছরের জুনেও এসব ব্যাংকের সুদহার ৯ শতাংশের বেশি ছিল। ফলে দেশে কার্যরত ৫৯টি ব্যাংকের মধ্যে প্রায় অর্ধেক ব্যাংক সময়মতো সুদ কমায়নি। আজ বাংলাদেশ ব্যাংকে অনুষ্ঠিতব্য ব্যাংকার্স সভায় এ নিয়ে আলোচনা করার কথা রয়েছে।

জানা যায়, সরকারের নির্দেশে ২০২০ সালের এপ্রিল থেকে ক্রেডিট কার্ড ছাড়া সব ঋণের সুদহার ৯ শতাংশ নির্দিষ্ট করে দেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এরপর ওই বছরের ১৭ জুন বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকার্স সভায় সিদ্ধান্ত হয়, কাদের সুদহার কত, তা নিয়ে বিশেষ পরিদর্শন হবে। যাদের সুদহার ৯ শতাংশের বেশি, তাদের বিরুদ্ধে ব্যাংক কোম্পানি আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ নিয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পরিদর্শন বিভাগগুলো মাঠপর্যায়ে পরিদর্শন করে। এতে বেরিয়ে আসে, গত বছরের ৩০ জুন পর্যন্ত ২৯টি বেসরকারি ব্যাংকের সুদহার ৯ শতাংশের বেশি ছিল।

এমন ১৭টি ব্যাংক হলো বেসরকারি খাতের এবি, বাংলাদেশ কমার্স, ডাচ্-বাংলা, ইস্টার্ন, মেঘনা, মার্কেন্টাইল, মিডল্যান্ড, মধুমতি, মিউচুয়াল ট্রাস্ট, পদ্মা, প্রাইম, সাউথ বাংলা অ্যাগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স, সাউথইস্ট, দি সিটি, ট্রাস্ট, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ও উত্তরা।

এ ছাড়া ইসলামি ধারার, বিদেশি খাতের ও প্রবাসীদের উদ্যোগে গঠিত ১২টি ব্যাংকও সময়মতো সুদ কমায়নি। সুদহারের নির্দেশনা মানেনি এমন ব্যাংকগুলো হলো ইউনিয়ন, এক্সিম, ইসলামী ব্যাংক, এসআইবিএল, আল-আরাফাহ্‌, ফার্স্ট সিকিউরিটি, শাহ্জালাল ইসলামী, এনআরবি, এনআরবি কমার্শিয়াল, ন্যাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্তান, আইসিবি ইসলামিক এবং স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়া।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পরিদর্শন বিভাগের কর্মকর্তারা জানান, যে সময়ে পরিদর্শন করা হয়, ওই সময়ে ব্যাংকগুলো সুদহার ৯ শতাংশ কমানোর ঘোষণা দিয়েছে। তবে অনেক ব্যাংক তা বাস্তবায়ন করেনি। আবার করলেও সব ধরনের ঋণপণ্যে সুদ কমায়নি।

এসএমই লিড ব্যাংকের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের ১০ নির্দেশনা

জানতে চাইলে সাউথইস্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম কামাল হোসেন বলেন, ‘আমরা ১ এপ্রিল সুদহার ৯ শতাংশে নামিয়ে এনেছি। আগে প্রতি মাসে ৮০-৯০ কোটি টাকা আয় হতো। এখন হয় ২৩ কোটি টাকা। সময়মতো সুদহার কমানো হয়নি, এটা কেউ বলে থাকলে ঠিক বলেননি।’

Leave a Reply

সাম্প্রতিক পোস্ট

এ সম্পর্কিত আরও দেখুন