ব্যাংকিং ডিপ্লোমা পরীক্ষাকে সময়োপযোগী করার দাবি

0

ব্যাংকারদের জন্য ব্যাংকিং ডিপ্লোমা খুব গুরুত্ববহন করে। আমাদের প্রমোশনের জন্য JAIBB এর সার্টিফিকেটে ৩ পয়েন্ট এবং DAIBB সার্টিফিকেটে ২ পয়েন্ট ধরা হয়। সকল সেক্টরে ডিপ্লোমা মূলত এইচ.এস.সি সমমান ধরা হয়। কিন্তু ব্যাংকিং ডিপ্লোমাতে এমন কোন মাপকাঠি নেই। কারন অনার্স মাস্টার্স করে ব্যাংকে জব করা ব্যাংকারদেরকেও এই এক্সামের মধ্য দিয়ে যেতে হয়। সেই দিক থেকে ব্যাংকিং ডিপ্লোমা প্রফেশনাল ডিগ্রী হিসেবে বিবেচিত হয়।

যেহেতু প্রফেশনাল ডিগ্রী বা এক্সাম তাই এই এক্সামের পদ্ধতিতে কিছু পরিবর্তন আসা উচিৎ বলে আমি মনে করি। সাধারনত প্রফেশনাল এক্সাম যেমনঃ MCSE, CCNA, GRE, IELTS ইত্যাদি পরিক্ষাগুলো হয় MCQ পদ্ধতিতে এবং অনলাইনে। তদ্রুপ ব্যাংকিং ডিপ্লোমাও এই পদ্ধতিতে নিয়ে আসা উচিৎ। এই ব্যাপারে আমার ভাবনা হচ্ছে-

√√ ডিপ্লোমা পরিক্ষা প্রতি ছয় মাস অন্তর অন্তর না করে প্রতি দুই মাস বা প্রতিমাসে করা উচিৎ।

√√ রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া হবে অনলাইনে, ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে।

√√ এক্সামে বিভিন্ন সাব্জেক্টের জন্য ১০০ প্রিসেট MCQ থাকবে। সময় হতে পারে ১ ঘন্টা বা ১.৫ ঘন্টা।

√√ এক্সাম পেপার অনলাইনে সাবমিট করার সাথে সাথে রেজাল্ট হয়ে যাবে এবং সার্টিফিকেট ইস্যু হবে।

√√ প্রশ্ন গুলো হবে বাস্তবসম্মত ও সৃজনশীল।

√√ ‎এই এক্সাম উন্মুক্ত করে দেয়া হবে এবং যে কেউ যে কোন স্থান থেকে অংশ নিতে পারবে।

√√ ‎প্রয়োজনে ব্যাংক জবের আবেদনের যোগ্যতা হিসেবে ডিপ্লোমা সার্টিফিকেট বাধ্যতামূলক করা যেতে পারে।

এতে করে ব্যাংকিং ডিপ্লোমা আরো বেশি প্রসার পাবে এবং আরো বেশি মানুষ এতে অংশগ্রহণ করতে পারবে। ব্যাংক জবের প্রস্তুতি হিসেবে তখন সবাই ডিপ্লোমা করে ফেলবে। এতে ব্যাংকে যোগদান করা কর্মকর্তারা আরো বেশি দক্ষতার সাথে ব্যাংকিং করতে পারবে।

আমার এই আইডিয়া গুলো IBB পর্যন্ত পৌঁছুবে কি না জানিনা। এবং পৌঁছালেও সেটা গুরত্ব পাবে কি না সেটাও জানিনা। তবে পরিবর্তন হওয়া উচিৎ সে ব্যাপারে সবাই একমত হবেন আশাকরি। এই এক্সামের ব্যাপারে এর চেয়ে ভালো আইডিয়া আপনার/আপনাদের থাকতে পারে। আমি শুধু আমার ভাবনাটা শেয়ার করলাম। শুভকামনা সবার জন্য।

লেখক: আল ইমরান, প্রিন্সিপাল অফিসার, সোনালী ব্যাংক লিমিটেড।।

Leave a Reply