যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলছে ব্যাংক এশিয়ার এজেন্ট সেবা

ব্যাংকিং সেবাবহির্ভূত বিপুল জনগোষ্ঠীকে ব্যাংকিং সেবার আওতায় আনার উদ্দেশ্যে ব্যাংক এশিয়া ২০১৪ সালে দেশে এজেন্ট ব্যাংকিং সেবা প্রবর্তন করে। ব্যক্তিক, প্রাতিষ্ঠানিক, ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার, সিটি ডিজিটাল সেন্টার ও ডিজিটাল পোস্ট অফিস ব্যাংকিং মিলে ব্যাংক এশিয়ার বর্তমান এজেন্ট আউটলেট সংখ্যা পাঁচ হাজার চারশ’র ওপরে। এছাড়া দেশব্যাপী ৫৬ হাজারেরও বেশি মাইক্রো মার্চেন্টের মাধ্যমে ডিজিটাল লেনদেন সুবিধা পৌঁছে দিচ্ছে গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর কাছে।

দেশের ৬৪টি জেলায় এখন ৫২ লাখের বেশি গ্রাহক ব্যাংক এশিয়ার সেবা ভোগ করছেন। এ গ্রাহকের ৯২ শতাংশ গ্রামীণ জনগোষ্ঠী এবং ৬২ শতাংশ নারী।

এজেন্ট নেটওয়ার্কের মাধ্যমে ব্যাংক এশিয়া বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা ও প্রতিবন্ধী ভাতাসহ বিভিন্ন ধরনের সরকারি সামাজিক সুরক্ষা ভাতা ২৮ লাখ ৫০ হাজার সুবিধাভোগীর হাতে পৌঁছে দিচ্ছে।

টেকনো ইনফো বিডি‘র প্রিয় পাঠক: প্রযুক্তি, ব্যাংকিং ও চাকরির গুরুত্বপূর্ণ খবরের আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ টেকনো ইনফো বিডি তে লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন।

এ বিশেষায়িত সেবা দ্রুত সম্প্রসারণে ব্যাংক এশিয়া সরকারের সমাজকল্যাণসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, ‘এটুআই’ প্রকল্প, ইউএনডিপি, ইউএসএইড, মেলিন্ডা-গেটস্ ফাউন্ডেশন, ওয়ার্ল্ড ফিস, সুইসকন্টাক্ট, মেটলাইফ ফাউন্ডেশনসহ প্রায় ৭০টি সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার সঙ্গে কাজ করছে। এজেন্ট ব্যাংকিং চ্যানেলে গ্রাহকের সঞ্চয় যেমন বাড়ছে, তেমনি পল্লির কৃষক, শ্রমিক ও বিভিন্ন পেশাজীবী অতি সহজে ঋণ গ্রহণের সুবিধা পাচ্ছে। গ্রামীণ অর্থনীতিও সমৃদ্ধ হচ্ছে লক্ষ্যণীয়ভাবে।

এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে অর্থনৈতিক অন্তর্ভুক্তির অভিযাত্রায় যুক্ত হয়েছে দেশের সরকারি ও বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো।

এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে ব্যাংক এশিয়া গ্রাহকদের এজেন্ট ব্যাংকিং হিসাব খোলা, জমা ও উত্তোলন, আরটিজিএস ও ইএফটিএনের মাধ্যমে ফান্ড ট্রান্সফার, ভোক্তা এসএমই ও কৃষিঋণ সুবিধা, সামাজিক সুরক্ষা ভাতার টাকা উত্তোলন, ইউটিলিটি বিল পেমেন্ট, রেমিট্যান্সের টাকা উত্তোলন, ইসলামিক ব্যাংকিং সুবিধা, ইন্স্যুরেন্সের টাকা জমাদান, অনলাইনে কেনাকাটাসহ প্রায় সব ধরনের ব্যাংকিং সেবা দিচ্ছে।

দেশের সব উপজেলায়ই ব্যাংক এশিয়া এজেন্ট ব্যাংকিং সেবা ছড়িয়ে পড়েছে। এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে দৈনিক গড়ে এক লাখ লেনদেন হয় ও টাকার পরিমাণ প্রায় ২০০ কোটি। গ্রাহকদের মাঝে মাসে প্রায় ২০ কোটি টাকার ঋণ বিতরণ করা হয়। বর্তমানে ব্যাংক এশিয়ার এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের ৫৩ লাখেরও বেশি গ্রাহক রয়েছে।

গ্রাহক চাহিদা ও যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ব্যাংক এশিয়া সেবা তালিকায় নতুন নতুন পণ্য ও সেবা যোগ করে চলেছে। উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, দেশব্যাপী নারী গ্রাহকদের চাহিদার কথা চিন্তা করে আমরা ‘নীলিমা’ ও ‘আঁচল’ নামে দুটি পণ্য আমাদের তালিকায় সংযোজন করেছি। একই সঙ্গে গ্রাহকসেবা সহজ ও দ্রুততর করার জন্য যোগ করেছি ই-কেওয়াইসি ও ফেস রিকগনিশনের মাধ্যমে লেনদেনসহ সময়োপযোগী অ্যাপ ও নানা উদ্ভাবনী বিষয়।

ব্যাংক এশিয়ার লক্ষ্য দেশের প্রতিটি নাগরিকের যেন একটি করে ব্যাংক হিসাব থাকে এবং ব্যাংকিং সেবা গ্রহণের অধিকার প্রতিষ্ঠিত হয়। সে লক্ষ্যে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। এজন্য এজেন্ট ও তাদের অফিসারদের সঠিকভাবে ব্যাংকিং রীতি-নীতি ও বিধিবিধান বিশেষ করে সন্ত্রাসে অর্থায়ন ও মুদ্রা পাচার প্রতিরোধের মতো বিষয়গুলোয় প্রশিক্ষণ দিতে হবে, যাতে করে এ নবীন সেবা চ্যানেলটি ঝুঁকিমুক্ত থাকে এবং আর্থিক অন্তর্ভুক্তি ও মানুষের দোরগোড়ায় সত্যিকারার্থে ব্যাংকিং সেবা পৌঁছে দিতে শক্তিশালী ভূমিকা পালন করতে পারে।

এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে ব্যাংক এশিয়ার বর্তমানে মাসে প্রায় ২০০ কোটি টাকার বৈদেশিক রেমিট্যান্সের টাকা বিতরণ করা হয়।

আরও দেখুন:
ডিজিটাল যুগের ব্যাংকিং

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button