ব্যাংকভিত্তিক লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করে দিল বাংলাদেশ ব্যাংক

0

বড় শিল্প ও সেবা খাতে ৩০ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় কোন ব্যাংক কি পরিমাণ ঋণ বিতরণ করবে সেই লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করে দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। ২০১৯ সালের ডিসেম্বর ভিত্তিক ঋণ স্থিতি অনুপাতে এ লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করা হয়েছে। এ ছাড়া কটেজ, মাইক্রো, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (সিএমএসএমই) খাতে ২০ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনাও ২০১৯ সালের ডিসেম্বর ভিত্তিক ঋণ স্থিতি অনুপাতে ব্যাংকগুলোকে বিতরণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

করোনাভাইরাসের অর্থনৈতিক ক্ষতি মোকাবেলায় বড় ও সেবা শিল্প এবং সিএমএসএমই খাতের চলতি মূলধন ঋণ যোগানে মোট ৫০ হাজার কোটি টাকার দুটি তহবিলের ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী। এ দুটি তহবিলের ব্যবহার নিয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নীতিমালায় বলা হয়, এ তহবিলের পুরোটাই বাণিজ্যিক ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে নিজস্ব উৎস থেকে বিতরণ করতে হবে। যদিও পরে এ তহবিলের অর্ধেক যোগান দিতে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে পৃথক দুটি পুনঃঅর্থায়ন তহবিল গঠন করা হয়।

বড় শিল্প ও সেবা খাতে ৩০ হাজার কোটি টাকার তহবিল নিয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নীতিমালায় বলা হয়েছিল, ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ঋণের স্থিতির মধ্যে স্ব স্ব ব্যাংকের অবদান এবং সম্ভাব্য ঋণ চাহিদার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে প্রতিটি ব্যাংক এ প্যাকেজের আওতায় ঋণের নিজস্ব চাহিদা নির্ধারণ করবে, যা এ প্যাকেজের আওতায় সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের ঋণের প্রাথমিক সীমা হিসেবে বিবেচিত হবে। ওই সীমার উপর ভিত্তি করে ব্যাংক তাদের ঋণ কার্যক্রম পরিচালনা করবে। ব্যাংক কর্তৃক ওই সীমা নির্ধারণের পর স্বল্পতম সময়ের মধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংককে জানাতে হবে।

জানা গেছে, সম্প্রতি ব্যাংকগুলো ঋণ সীমা নির্ধারণ করে বাংলাদেশ ব্যাংকে জানানোর পর যাচাই-বাছাই শেষে স্ব স্ব ব্যাংকের লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করে দেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এ ছাড়া সিএমএসএমই খাতের ২০ হাজার কোটি টাকার তহবিলের ক্ষেত্রেও ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ঋণের স্থিতির উপর ভিত্তি করে ব্যাংকগুলোকে ঋণ বিতরণ নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

জানতে চাইলে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক আবু ফরাহ মোহাম্মদ নাছের বলেন, বড় শিল্প ও সেবা এবং সিএমএসএমই খাতের এই দুই তহবিলের ঋণ বিতরনের বিপরীতে নির্ধারিত হারে সুদ ভর্তুকী দেবে সরকার। আবার এই দুই তহিলের অর্ধেক ২৫ হাজার কোটি টাকা স্বল্প সুদে পুনঃঅর্থায়ন করবে বাংলাদেশ ব্যাংক। ফলে এ তহবিলের ঋণ বিতরনের ক্ষেত্রে বিশৃঙ্খলা দেখা যেতে পারে-এমন আশংকা থেকে আমরা ব্যাংক ভিত্তিক লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করে দিয়েছি। কালের কণ্ঠ।

Leave a Reply