টিআইবিঃ টেক জায়ান্ট অ্যাপল ২০১৮ সালে বিশ্বের প্রথম ট্রিলিয়ন ডলার বাজারমূল্যের কোম্পানির মাইলফলক ছুঁয়েছে। তবে আইফোনের চাহিদা কমার কারণে এ অর্জন বেশিদিন ধরে রাখতে পারেনি মার্কিন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি। যে কারণে ২০১৯ সালকে গুরুত্বপূর্ণ মনে করছে অ্যাপল। ব্যবসায় প্রবৃদ্ধির জন্য চলতি বছর প্রতিষ্ঠানটি যেসব পণ্য আনতে পারে তা নিয়ে আমাদের আজকের আয়োজনের।

নতুন আইফোন:
প্রতি বছর সেপ্টেম্বরে নতুন আইফোন উন্মোচন করে আসছে অ্যাপল। এবারো তার ব্যতিক্রম হবে না বলে মনে করা হচ্ছে। আপল নতুন পণ্য বিষয়ে আগেই কোনো মন্তব্য করে না। তবে অ্যাপল পণ্য বিশ্লেষক মিং-চি কুর ভাষ্যে, এবারো একযোগে নতুন তিন আইফোন উন্মোচন করবে অ্যাপল। ডিভাইসগুলো উন্নত প্রসেসরের পাশাপাশি হালনাগাদ হার্ডওয়্যার থাকবে। বিশেষ চমক হিসেবে চলতি বছর একটি ডিভাইসে ট্রিপল লেন্স ক্যামেরা ব্যবহার করা হতে পারে।

আইপ্যাড মিনি:
গত বছর অক্টোবরে টিএফ ইন্টারন্যাশনাল সিকিউরিটিজের এক বিশ্লেষক পূর্বাভাস দিয়েছিলেন, চলতি বছর তুলনামূলক ছোট স্ক্রিনের নতুন একটি আইপ্যাড উন্মোচন করবে অ্যাপল। ২০১৫ সালে সর্বশেষ আইপ্যাড মিনির হালনাগাদ সংস্করণ উন্মোচন করেছিল প্রতিষ্ঠানটি। চলতি বছর আসতে যাওয়া নতুন ডিভাইসটিকে আইপ্যাড মিনির নতুন সংস্করণ মনে করা হচ্ছে। ডিভাইসটি তুলনামূলক সাশ্রয়ী হবে।

ম্যাক প্রো:
২০১৬ সালে প্রোগ্রামার, ভিডিওগ্রাফার এবং অন্য পেশাজীবীদের জন্য অত্যন্ত শক্তিশালী একটি ডেস্কটপ কম্পিউটার উন্মোচনের প্রাথমিক ঘোষণা দিয়েছিল অ্যাপল। গত দুই বছরে এ ডিভাইস নিয়ে আর কোনো কথা বলেনি প্রতিষ্ঠানটি। ধারণা করা হচ্ছে, চলতি বছর ‘মডিউলার’ ম্যাক প্রো ডিভাইস উন্মোচন করবে অ্যাপল। ডিভাইসটি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য মেলেনি।

এয়ারপাওয়ার:
চলতি বছর ওয়্যারলেস চার্জিং স্টেশন ‘এয়ারপাওয়ার’ আনতে পারে অ্যাপল। ২০১৭ সালে আইফোনের দশকপূর্তি সংস্করণে ওয়্যারলেস চার্জিং প্রযুক্তি এনেছিল প্রতিষ্ঠানটি। সে সময় ওয়্যারলেস চার্জিং ম্যাটের একটি ডেমো দেখানো হয়েছিল। তবে পরবর্তী সময়ে এয়ারপাওয়ার নামের ওই পণ্যটি আর বাজারজাত করা হয়নি। ধারণা করা হচ্ছে, এবার বাস্তবেই আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছে অ্যাপল এয়ারপাওয়ার।

আইফোন টেনের ব্যাটারি কেস:
অ্যাপল বরাবরই পুরনো আইফোনের জন্য নিজস্ব ব্যাটারি কেস তৈরি করে আসছে, যা ব্যাটারির আয়ুষ্কাল বাড়িয়ে দেয়। তবে এক্স কিংবা টেন সিরিজের আইফোনের জন্য এ পর্যন্ত কোনো ব্যাটারি কেস উন্মোচন করেনি প্রতিষ্ঠানটি। ৯টু৫ ম্যাকের তথ্যমতে, আইফোন টেন এবং আইফোন এক্সএসের জন্য ব্যাটারি কেস আনতে কাজ করছে অ্যাপল। শিগগিরই এই কেস বাজারে সরবরাহ শুরু হবে।

নতুন এয়ারপডস:
চলতি বছর ওয়্যারলেস চার্জিং সুবিধার একজোড়া নতুন এয়ারপডস উন্মোচন করবে অ্যাপল। ডিভাইসগুলো আগের সংস্করণের চেয়ে আরো উন্নত এবং বেশি ফিচারসংবলিত হবে। পানিরোধী এ ইয়ারফোনে নয়েজ ক্যান্সেলিং প্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে। তবে নতুন এয়ারপডসের দাম আগের সংস্করণের চেয়ে বেশি হবে।

ম্যাকের জন্য এক্সটারনাল ডিসপ্লে:
নতুন ম্যাক প্রোর পাশাপাশি হেডলেস ডেস্কটপের জন্য একটি এক্সটারনাল ডিসপ্লে উন্মোচন করতে পারে অ্যাপল। এর আগেও থান্ডারবোল্ট নামে এক্সটারনাল ডিসপ্লে এনেছিল প্রতিষ্ঠানটি। তবে তা ২০১৬ সালে উৎপাদন বন্ধের ঘোষণা দেয়া হয়েছিল। নতুন এক্সটারনাল ডিসপ্লে অত্যন্ত উচ্চ রেজল্যুশনের হবে, যা আগামী জুলাই মাসে সরবরাহ শুরু হতে পারে।

ওভার-ইয়ার হেডফোন:
চলতি বছর অ্যাপলের সবচেয়ে আকর্ষণীয় এবং নতুন হাই-এন্ড পণ্যটি হবে একজোড়া ওভার-ইয়ার হেডফোন। এ হেডফোন উন্নত ও নিখুঁত শব্দের নিশ্চয়তা দেবে। পাশাপাশি এতে থাকবে নয়েজ ক্যান্সেলিং প্রযুক্তি, যা আইফোনের সঙ্গে জুড়ে দিয়ে ব্যবহার করা যাবে। বাজারে বিটস ব্র্যান্ডের হেডফোন বিক্রি করছে অ্যাপল। তবে নতুন হেডফোন অ্যাপল ব্র্যান্ডের হবে।

অ্যাপল ঘড়ি:
আইফোনের পাশাপাশি অ্যাপল ঘড়ির নতুন সংস্করণ আনা হতে পারে। ডিভাইসটি আগের সংস্করণগুলোর চেয়ে আরো হালকা-পাতলা এবং আকর্ষণীয় হবে। চলতি বছর অ্যাপল ঘড়ির সব সংস্করণে সেলুলার সংযোগ সুবিধা মিলতে পারে।

ম্যাকবুক ও আইম্যাক:
চলতি বছর ম্যাকবুক ল্যাপটপ ও অল-ইন-ওয়ান ম্যাকবুক কম্পিউটারের নতুন সংস্করণ উন্মোচন করবে অ্যাপল। ইন্টেলের সর্বশেষ চিপ সংবলিত এ দুই ডিভাইসে আরো উন্নত হার্ডওয়্যার ব্যবহার করা হবে।

সূত্র: বিজনেস ইনসাইডার

Leave a Reply