অ্যান্ড্রয়েড পাই ৯: ফিচার, ভিডিও এবং যে ফোনগুলো সাপোর্ট করবে।

0
225

টিআইবিঃ টেক জায়ান্ট গুগল সম্প্রতি মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েডের সর্বশেষ সংস্করণ অ্যান্ড্রয়েড পাই বাজারে এনেছে। ৬ আগস্ট গুগল অ্যান্ড্রয়েডের নতুন এ সংস্করণের ঘোষণা দেয়। অ্যান্ড্রয়েড পরিবারে এটি নবম সংস্করণ। এর আগের সংস্করণ ছিল ওরিও। নতুন এই সংস্করণে গুগল এনেছে বিশেষ কিছু পরিবর্তন।

গুগল বরাবরই তাদের অ্যান্ড্রয়েডের ওএসের নামের জন্য কোনো ডেজার্ট বা মিষ্টান্নের নাম বাছাই করে। আর এক্ষেত্রে আরও একটি ক্রম তারা ফলো করে আর সেটি হচ্ছে নামের প্রথম অক্ষর ইংরেজি বর্ণমালার ক্রমানুযায়ী নামকরণ হয়ে আসছে। যেমন- জেলি বিন, কিট ক্যাট, ললিপপ এবং মার্শমেলো। এবারের নামকরণের ক্ষেত্রে সহজ কিছু নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল। তাই নামটি সহজ রাখতে গিয়েই শুধু ‘পাই’ বেছে নিয়েছে বলে জানান নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটির লন্ডন প্রকৌশল দলের প্রধান।

অ্যান্ড্রয়েডের নবম এ সংস্করণে নোটিফিকেশন আগে চেয়ে আরও উন্নত করা হয়েছে আর ব্যাটারির চার্জ বেশিক্ষণ রাখার প্রতিশ্রুতিও দেয়া হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে এক প্রতিবেদনে। নতুন এ সংস্করণে স্মার্টফোন বা ট্যাবলেটে অ্যাপের ব্যবহার কতটুকু হচ্ছে তা শনাক্ত করার নতুন উপায় আনা হয়েছে। সেই সঙ্গে এ ব্যবহারের মাত্রা নিয়ে সীমাও নির্ধারণ করে দেয়ার সুযোগ রয়েছে।

আসুন দেখে নিই অ্যান্ড্রয়েডের নতুন অপারেটিং সিস্টেম ‘পাই’তে কি কি নতুন ফিচার থাকছে-

আপডেট নোটিফিকেশনঃ

অ্যান্ড্রয়েডের নতুন এ সংস্করণে সর্বাধিক গুরুত্ব দেয়া হয়েছে নোটিফিকেশন অ্যালার্ট। যে কোনো অ্যালার্টের সঙ্গে ছবি দেখানো হবে। যেমন, কোনো কলের নোটিফিকেশনের ক্ষেত্রে যিনি কল করেছেন তার একটি ছোট ছবি দেখানো হবে। কোনো কনটেন্ট শেয়ার করা হলে তার প্রিভিউ দেখা যাবে অ্যালার্টের সঙ্গে।

সেই সঙ্গে স্মার্ট রিপ্লাই ফিচারের মাধ্যমে নোটিফিকেশন গুলো থেকেই ব্যবহারকারীরা তাদের পাওয়া মেসেজের জবাব দিতে পারবে। ব্যবহারকারীরা টাইপ না করেও প্রত্যাশিত জবাব পাঠিয়ে দিতে পারবেন।

অ্যাপ অ্যাকশনঃ

নতুন সংস্করণে নতুন একটি আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স সুবিধা যুক্ত হচ্ছে, অ্যাপ অ্যাকশনস। প্রতিদিন আপনার ফোনে কোন সময়ে কোন অ্যাপ ব্যবহার করেন তার সাজেশন দেখাবে। ধরুন প্রতিদিন সকালে আপনি বিশ্ববিদ্যালয়ে বা অফিসে যাওয়ার সময় উবার বা পাঠাও অ্যাপ ব্যবহার করেন। অ্যাপ অ্যাকশনের মাধ্যমে সেই নির্দিষ্ট সময় আপনার প্রয়োজনী এই অ্যাপটি নিজে থেকেই ওপেন করবে। শুধু তাই নয়, নির্দিষ্ট সময় অ্যাপ চালু করতে আপনার মোবাইল ডাটা চালু করে নেবে। অথবা আপনি যদি ওয়াইফাই এলাকাতে থাকেন তবে কানেকশনটি অন করে নেবেন। আবার আপনি সর্বশেষ ফোনে হেডফোন লাগিয়ে ইউটিউব অন করেছিলেন, পরে আবার যখন ফোনে হেডফোন লাগাবেন তখন সে ইউটিউব সাজেশন আকারে দেখাবে।

স্লাইসেসঃ

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার আরেকটি ব্যবহার করা হয়েছে স্লাইসেসের মাধ্যমে। ধরুন, আপনি অপরিচিত কোনো শহরে গেছেন। তখন গুগলে স্লাইসেস ব্যবহার করে আপনি কাছের রেস্টুরেন্টের টেবিল বুক করতে পারবেন। অথবা উবারে করে কোথাও যেতে চান, তবে কত দূরে সেই গাড়িটি আছে তা জানিয়ে দেবে স্লাইসেসের মাধ্যমে।

ব্যাটারি কার্যক্ষমতা নিয়ন্ত্রণঃ

মোবাইলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে ব্যাটারি। ফোন বা ফিচার যতই উন্নত হোক না কেন, ব্যাটারি ব্যাকআপ না থাকলে এটা আপনার নজর কাড়বে না। ফোন উৎপাদনকরী প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি বিষয়টিতে নজর দিয়েছে অপারেটিং সিস্টেম তৈরি প্রতিষ্ঠান গুগল। তাই এবার ফোনের কার্যক্ষমতা বাড়াতে যুক্ত করা হয়েছে অ্যাডাপটিভ ব্যাটারি, যা নিয়ন্ত্রণ হচ্ছে এআই প্রযুক্তির মাধ্যমে। এর মাধ্যমে কোন অ্যাপটি পাওয়ার্ড দিতে হবে এবং কোন অ্যাপটি ব্যাক পাওয়ার বন্ধ করতে হবে, তা নিজেই নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। ফলে ফোনের ব্যাটারি আগের চেয়ে অনেক বেশি সময় ধরে চলবে। এর পরই রয়েছে অ্যাডাপটিভ ব্রাইটনেস। বেশিরভাগ সময়ে আমরা ফোনে অটোব্রাইটনেস ব্যবহার করি। তবে ঘরের বাইরে থাকা অবস্থায় তা ভালোভাবে কাজ করে না। ফোনের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার মাধ্যমে ফোনে কখন কতটুকু আলো লাগবে, তা নিয়ন্ত্রণ করবে অ্যাডাপটিভ ব্রাইটনেস।

ইন্টিটিভ নেভিগেশনঃ

আপনার কাজকে সহজ করবে এই বাটনটি। নেভিগেশনে থাকছে একটি স্বতন্ত্র হোম বাটন। এর মাধ্যমে সম্প্রতি আপনি কোন অ্যাপ ব্যবহার করছেন তা বিস্তারিত দেখাবে। এই অ্যাপ্লিকেশনগুলো সোয়াইপ করে দেখতে পারবেন। এর মাধ্যমে কোনো নম্বর কপি করলে ডায়াল বক্সটি ওপেন হবে। আবার ই-মেইল ঠিকানা কপি করলে ই-মেইল অ্যাপটি খুলে যাবে।

জেসচার নেভিগেশনঃ

অ্যান্ড্রয়েড পাইতে নেভিগেট করার জন্য কোনো অনস্ট্ক্রিন নেভিগেশন বার এবং ৩টি অনস্ট্ক্রিন বাটন থাকবে না। এখানে একটি বার থাকবে, যেটি থেকে ওপরের দিকে সোয়াইপ করে চলে যাওয়া যাবে ওভারভিউ স্ট্ক্রিনে। আবার লেফট সোয়াইপ করে চলে যাওয়া যাবে রিসেন্ট অ্যাপস মেনুতে। এ ছাড়া ব্যাক বাটন দেওয়া হয়েছে শুধু পেছনে যেতে। এই নেভিগেশন বারটিকে গুগল বলছে কুইক স্ট্ক্রাব। তবে গুগল এটিকে একমাত্র নেভিগেশন অপশন হিসেবে রাখছে না। চাইলে সেটিংস থেকে ফিচারটিকে ডিজেবল করে দিয়ে ট্র্যাডিশনাল তিন বাটনের অনস্ট্ক্রিন নেভিগেশন বার ফিরিয়ে আনতে পারবেন।

ভলিউম ও স্ট্ক্রিন রোটেশনঃ

ভলিউম স্লাইডার আবার স্থানান্তরিত হয়েছে। এবার এটি ফোনের ডান দিকে ভলিউম বাটনের কাছাকাছি সাজানো হয়েছে। এটি বোধগম্য যে, কেউ যদি কোনো নতুন বাড়িতে আসে তখন তার কাছে যেমন মনে হবে ঠিক তেমনি নতুন অপারেটিং সিস্টেমটি নতুন ব্যবহারকারীদের কাছে মনে হবে। ভলিউম কিগুলো পরিচালনা করা একটু অন্যরকম মনে হলে আপনি রিংয়ার ভলিউম ম্যানুয়ালভাবে কন্ট্রোল করতে পারেন। রিংয়ারটি আপনি সফটওয়্যারের মাধ্যমে অন করে নিতে পারেন এবং আলাদা করেও সাজিয়ে নিতে পারেন। আপনার প্রতিক্রিয়া এমন হতে পারে যে, কেন আগে এমনটি ছিল না? আপনি চাইলে আপনার ফোনের স্ট্ক্রিন রোটেশন ম্যানুয়ালভাবেই কন্ট্রোল করতে পারেন। এটি সাধারণত স্ট্ক্রিন ঘুরানোর সময় একটি পপ-আপ আইকনের মাধ্যমে রোটেশন কন্ট্রোল করা হয়। আপনি যখন ফোনের স্ট্ক্রিনটি ঘুরাবেন তখন এটি কাজ করবে। এটি আপনার ফোনের ওপরেও নির্ভর করবে।

অ্যাক্সেসিবিলিটি মেন্যুঃ

অ্যান্ড্রয়েড-৯ ‘পাই’য়ে যুক্ত হয়েছে নতুন অ্যাক্সেসিবিলিটি মেন্যু। এছাড়া প্রতিবন্ধীদের জন্য স্ক্রিনশট ও নেভিগেট সিস্টেম আগের চেয়ে সহজ করা হয়েছে।

সিলেক্ট টু স্পিঃ

অ্যান্ড্রয়েড পাইয়ে সিলেক্ট টু স্পিক ফিচারের সঙ্গে অপটিক্যাল ক্যারেক্টার রেকগনিশন ফিচার যুক্ত হয়েছে। ফলে ক্যামেরার মাধ্যমে তোলা ছবি বা লেখা স্বয়ংক্রিয়ভাবে উচ্চারিত হবে।

অ্যাডাপটিভ ব্রাইটনেসঃ

এ ফিচারটির মাধ্যমে আলোর গতিবিধির ওপর নজর রাখে। ফলে কোন পরিবেশে আপনার কী পরিমাণ আলো প্রয়োজন, তা জেনে সেই পরিবেশে একই পরিমাণ আলো কম-বৃদ্ধি করে থাকে।

ব্যাকগ্রাউন্ড রেসট্রিকশনসঃ

দ্রুত ব্যাটারির চার্জ কমিয়ে ফেলা অ্যাপগুলোর পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করবে এ ফিচারটি।

ড্যাশবোর্ড এবং অ্যাপ টাইমারঃ

ডিজিটাল ওয়েলবিংয়ের প্রথম সুবিধাই হচ্ছে ড্যাশবোর্ড। অ্যান্ড্রয়েড পাইয়ের ড্যাশবোর্ড ফিচারটি মূলত অতিরিক্ত স্মার্টফোন আসক্তি থেকে মুক্ত করার জন্যই রাখা হয়েছে। এই ফিচারটি জানাবে ফোনে কোন ফিচারটির পেছনে কতক্ষণ সময় দিচ্ছেন, কোন অ্যাপটি বেশি, কোনটি কম ব্যবহার করেন ইত্যাদি তথ্য। এই ড্যাশবোর্ড দেখাবে আপনি আজকে ৪ ঘণ্টা ফেসবুক অ্যাপ ব্যবহার করেছেন, ২ ঘণ্টা ইউটিউবে ভিডিও দেখেছেন অথবা ১ ঘণ্টা ব্রাউজার অ্যাপ ব্যবহার করেছেন। এছাড়া ওই দিন ঠিক কতবার ফোনটির স্ট্ক্রিন আনলক করেছেন এবং কতগুলো নোটিফিকেশন রিসিভ করেছেন। অ্যাপ টাইমারের মাধ্যমে আপনি ফিচারগুলো ব্যবহারের সময় নির্ধারণ করে দিতে পারবেন। সেই সময় পরেই ফিচারটি অফ হয়ে যাবে। আর একটি ফিচার হলো ডিঅ্যান্ডডি। অর্থাৎ ডু নট ডিস্টার্ব। এই ফিচারটি অন করলে কাজের মধ্যে আর কোনো নোটিফিকেশন এলেও আপনাকে দেখাবে না। ফলে কোনো ঝামেলা ছাড়া কাজ করতে পারবেন। এ ছাড়া উইন্ড ডাউন ফিচারটি ঘুমানোর সময় সম্পূর্ণ ডিভাইসটির থিম চেঞ্জ করে সাদা-কালো থিম দেবে। ফলে চোখের ওপরে কম প্রভাব ফেলবে এবং ঘুমাতে সাহায্য করবে। পরের দিন সকালে আবার সাদা-কালো থিমটি চেঞ্জ হয়ে রেগুলার থিম চলে আসবে।

মাল্টিপল ব্লুটুথ কানেকশনসঃ

অ্যান্ড্রয়েড ৯-এ থাকা মাল্টিপল ব্লুটুথ কানেকশনস ফিচারটির মাধ্যমে পাঁচটি ডিভাইস ব্লুটুথের মাধ্যমে সংযুক্ত করা যাবে।

যে ফোনগুলো অ্যান্ড্রয়েড পাই ৯ সাপোর্ট করবে-

Google

ইতিমধ্যেই Google এর Pixel সিরিজের ফোনগুলিতে Android Pie আপডেট পৌঁছে গিয়েছে। তবে Nexus 6P ফোনে এই আপডেট পৌঁছেছে কী না সেই বিষয়ে সঠিক তথ্য পাওয়া যায়নি। নীচের Pixel মডেলগুলিতে ইতিমধ্যেই Android Pie আপডেট পৌঁছে গিয়েছে:

  • Pixel 2 XL
  • Pixel 2
  • Pixel XL
  • Pixel

Nokia

এই মুহুর্তে Android ফোন প্রস্তুতকারী কোম্পানিগুলির মধ্যে গ্রাহকদের লেটেস্ট Android আপডেট দেওয়ার ক্ষেত্রে এক নম্বরে থাকবে Nokia। কোম্পানির সব স্মার্টফোনে শিঘ্রই Android Pie আপডেট পৌঁছে যাবে বলে জানিয়েছে Nokia। নীচের Nokia মডেলগুলিতে Android Pie আপডেট পাওয়া যাবে:

  • Nokia 8 Sirocco
  • Nokia 8
  • Nokia 7 Plus
  • Nokia 7
  • Nokia X6 aka Nokia 6.1 Plus
  • Nokia 6.1
  • Nokia 6
  • Nokia X5
  • Nokia 5.1
  • Nokia 5
  • Nokia 3.1
  • Nokia 3
  • Nokia 2.1
  • Nokia 2
  • Nokia 1

OnePlus

কোম্পানির বিভিন্ন ফোনে লেটেস্ট Android ভার্সান আপডেট যথেস্ট সচেষ্ট চিনের কোম্পানিটি। OnePlus এর লেটেস্ট ফ্ল্যাগশিপ OnePlus 6 ছাড়াও নীচের মডেলগুলিতে Android Pie আপডেট পৌঁছে যাবে:

  • OnePlus 6
  • OnePlus 5T
  • OnePlus 5
  • OnePlus 3T
  • OnePlus 3

Sony

সম্প্রতি কম দামে ভালো ফোন গ্রাহকের হাতে তুলে দিতে হোঁচট খাচ্ছে Sony। যদিও নিজেদের একাধিক ফোনে লেটেস্ট Android Pie আপডেট দিয়ে কোম্পানির গ্রাহকদের ভালো অভিজ্ঞতা দেওয়ার কাজ করে চলেছে কোম্পানিটি। নীচের Sony মডেলগুলিতে Android Pie আপডেট পাওয়া যাবে:

  • Sony Xperia XZ2 Premium
  • Sony Xperia XZ2 Compact
  • Sony Xperia XZ2
  • Sony Xperia XZ1 Compact
  • Sony Xperia XZ1
  • Sony Xperia XZ Premium

Xiaomi

Xiaomi-র বেশিরভাগ ফোনেই Android অপারেটিং সিস্টেমের উপরে কোম্পানির নিজস্ব MIUI স্কিন চলে। তাই লেটেস্ট Android ব্যবহারে সবসময় অনেকটা পিছিয়ে Xiaomi। কোম্পানির লেটেস্ট MIUI অপারেটিং সিস্টেমে এখনো কয়েক বছরের পুরনো Nougat অপারেটিং সিস্টেম চলে। Oreo ভার্সান এখনো বিটা টেস্টিং পর্যায়ে রয়েছে। তবে কোম্পানির যে ফোনগুলিতে MIUI স্কিন চলে না সেই ফোনে Android Pie আপডেট আসবে:

  • Mi A2
  • Mi A2 Lite
  • Mi A1
  • Mi MIX 2S

Huawei/Honor

আর এক জনপ্রিয় চিনের ব্র্যান্ড Huawei আর Honor লেটেস্ট Android আপডেটে অনেকটাই পিছিয়ে। প্রায় প্রতি সপ্তাহেই নতুন ফোন লঞ্চ করলেও শুধুমাত্র নীচের কয়েকটি মডেলে Android Pie আপডেটের কথা ঘোষনা করেছে Huawei/Honor:

  • Huawei P20 Pro
  • Huawei Mate 10 Pro
  • Honor 10
  • Honor View 10 (Honor V10)

Asus

এই বছরে কয়েকটি জনপ্রিয় ফোন লঞ্চ করে বাজারে ফিরে এসেছে Asus। আর এই সবকটি জনপ্রিয় ফোনেই Android Pie আপডেট দেবে কোম্পানি:

  • Zenfone 5Z
  • Zenfone 5
  • Zenfone Max Pro M1

Motorola

গ্রাহকদের জলদি লেটেস্ট Android আর স্টক Android এর অভিজ্ঞতা দেওয়ার জন্য ইতিমধ্যেই নাম করেছে Motorola। কোম্পানির নীচের মডেলগুলিতে Android Pie আপডেট আসবে বলে জানানো হয়েছে:

  • Moto G6
  • Moto G6 Play
  • Moto G6 Plus
  • Moto Z3
  • Moto Z3 Play

সূত্রঃ ইন্টারনেট

Leave a Reply