আদিল চৌধুরী ব্যাংক এশিয়ার নতুন প্রেসিডেন্ট ও এমডি

আদিল চৌধুরী সম্প্রতি ব্যাংক এশিয়ার প্রেসিডেন্ট ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক পদে নিযুক্ত হয়েছেন। এর আগে, তিনি আগস্ট ২০২২ থেকে ব্যাংকের প্রেসিডেন্ট ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকের চলতি দায়িত্ব পালন করছিলেন।

টেকনো ইনফো বিডি‘র প্রিয় পাঠক: প্রযুক্তি, ব্যাংকিং ও চাকরির গুরুত্বপূর্ণ খবরের আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ টেকনো ইনফো বিডি তে লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন।

চৌধুরী ২০২০ সালের আগস্টে উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে ব্যাংক এশিয়ায় যোগদান করেন। এরপর তিনি অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে পদোন্নতি পান এবং গ্লোবাল ব্যাংকিং সেক্টর, স্পেশাল অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট এবং ব্যাংকের গ্লোবাল সাবসিডিয়ারি তত্ত্বাবধায়নের দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। গ্লোবাল ব্যাংকিং সেক্টরের আওতায় রয়েছে ইন্টারন্যাশনাল ডিভিশন, অফসোর ব্যাংকিং অপারেশন্স, ফরেন রেমিট্যান্স, সেন্ট্রাল ট্রেড সার্ভিস ইউনিট এবং ট্রেজারি ব্যাক অফিস।

চৌধুরীর দুই দশকেরও অধিক সময়ের সফল ব্যাংকিং ক্যারিয়ারে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রায় ১৫ বছরের অভিজ্ঞতা রয়েছে। তিনি হংকং ও সিঙ্গাপুরে ব্যাংক অব নোভা স্কশিয়ায় (কানাডা) পরিচালক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি ইন্টারন্যাশনাল ব্যাংকিং, গ্রুপ ট্রেজারি, রেগুলেটরি ল’জ এবং কম্প্রিহেনসিভ-ওয়াইড অপারেশনের অভিজ্ঞতাসম্পন্ন, যা ব্যাংক এশিয়াকে সমৃদ্ধকরণে কাজে লাগিয়েছেন।

১৯৯৫ সালে ক্রেডিট এগ্রিকোল ইন্দোসুয়েজ, ঢাকায় ডেপুটি ম্যানেজার পদে যোগদানের মাধ্যমে তার পেশা জীবন শুরু হয়। তিন বছরের অধিক সময় পর তিনি আমেরিকান এক্সপ্রেস ব্যাংকের ঢাকা অফিসে যোগ দেন। ১৯৯৯ সালে জনাব চৌধুরী ব্যাংক অব নোভা স্কশিয়া, ঢাকায় ট্রেজারি প্রধান হিসেবে যোগদান করেন যেখানে তিনি ট্রেজারি বিভাগ চালু করেন এবং সর্বোত্তম সুশাসন ও ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করেন।

২০০১ সালে তিনি ব্যাংক অব নোভা স্কশিয়া, হংকং এ বদলি হন যেখানে তিনি এশিয়ার ১৩ টি দেশের আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সাথে ব্যবসায় উন্নয়ন এবং ব্যবসায় কৌশল প্রনয়ণ নিয়ে কাজ করেন। ২০১১ সালে তিনি ব্যাংক অব নোভা স্কশিয়া, সিঙ্গাপুরে পরিচালক, ইন্টারন্যাশনাল ফান্ডিং, হিসেবে পদোন্নতি লাভ করেন এবং এশিয়া প্যাসিফিক, মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকা অঞ্চলের কেন্দ্রীয় ব্যাংক এবং সরকারী বিনিয়োগ সংস্থাসমূহের সাথে নয় বিলিয়ন মার্কিন ডলারের পোর্টফোলিও নিয়ে কাজ করেন।

১৯৯০ সালে একাডেমিক পর্যায়ে অসামান্য অর্জনের স্বীকৃতি স্বরূপ তিনি আমেরিকান স্কুল ও কলেজ পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী নির্বাচিত হন এবং “Who’s Who Student Certificate of Merit” সনদ লাভ করেন।

চৌধুরী যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস বিশ্ববিদ্যালয় হতে ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং-এ স্নাতক এবং কানাডার ইউনিভার্সিটি অব ওয়েস্টার্ণ ওন্টারিও-এর রিচার্ড আইভি স্কুল অব বিজনেস থেকে এমবিএ ডিগ্রীধারী।

আরও দেখুন: সিটি ব্যাংকের স্বতন্ত্র পরিচালক হলেন মতিউল ইসলাম

আন্তর্জাতিক আর্থিক বাজার নিয়ন্ত্রণ ও ব্যবস্থাপনার উপর বিভিন্ন দেশ হতে তিনি বেশকিছু সার্টিফিকেট অর্জন করেছেন।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button