ব্যাংক সার্কুলার

খেলাপিদের ঋণের বিপরীতে রাখতে হবে অতিরিক্ত প্রভিশন

পুনঃতফসিলি বা এককালীন এক্সিট সুবিধাপ্রাপ্ত ঋণের বিপরীতে আরোপিত সুদ নগদ আদায় না হলে আয়খাতে স্থানান্তর করা যাবে না বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। একই সঙ্গে সুবিধাপ্রাপ্ত ঋণের বিপরীতে অতিরিক্ত ২ শতাংশ জেনারেল প্রভিশন সংরক্ষণ করতে হবে। তবে সিএমএসএমই খাতের সুবিধাপ্রাপ্ত ঋণের বিপরীতে অতিরিক্ত ১ শতাংশ প্রভিশন সংরক্ষণ করা যাবে বলেও জানায় আর্থিক খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

টেকনো ইনফো বিডি‘র প্রিয় পাঠক: প্রযুক্তি, ব্যাংকিং ও চাকরির গুরুত্বপূর্ণ খবরের আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ টেকনো ইনফো বিডি তে লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন।

বৃহস্পতিবার (২২ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করে দেশে কার্যরত সকল তফসিলি ব্যাংকে পাঠানো হয়েছে।

সার্কুলারে বলা হয়, ঋণ শ্রেণিকরণ সুবিধা প্রাপ্ত ঋণের সম্ভাব্য আদায় ঝুঁকি বিশ্লেষণ পূর্বক ২০২২ সালের আরোপিত সুদ বিদ্যমান বিধান অনুযায়ী আয়খাতে স্থানান্তর করা যাবে। তবে পুনঃতফসিল ও এককালীন এক্সিট সুবিধাপ্রাপ্ত ঋণের বিপরীতে আরোপিত সুদ নগদ আদায় ছাড়া আয়খাতে স্থানান্তর করা যাবে না। সুবিধাপ্রাপ্ত ঋণের বিপরীতে অতিরিক্ত ২ শতাংশ জেনারেল প্রভিশন সংরক্ষণ করতে হবে। তবে সিএমএসএমই খাতের সুবিধাপ্রাপ্ত ঋণের বিপরীতে অতিরিক্ত ১ শতাংশ প্রভিশন সংরক্ষণ করা যাবে।

সুবিধাপ্রাপ্ত কোনো ঋণ নগদ আদায়ের মাধ্যমে সম্পূর্ণভাবে পরিশোধিত হলে সংরক্ষিত অতিরিক্ত জেনারেল প্রভিশন ব্যাংকের নিজস্ব বিবেচনায় আয়খাতে স্থানান্তর করা যাবে। ঋণ সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় তথ্যাদি (ঋণগ্রহীতার নাম, ঋণ স্থিতি, ধার্যকৃত সুদ, আয়খাত ও ইন্টারেস্ট সাসপেন্স হিসাবে স্থানান্তরিত সুদ, অতিরিক্ত প্রভিশনের পরিমাণ ইত্যাদি) সংশ্লিষ্ট শাখায় এবং প্রধান কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট ডিপার্টমেন্টে সংরক্ষণ করতে হবে। ইসলামী শরীয়াহ্ ভিত্তিক ব্যাংকগুলো একই নীতিমালা অনুসরণ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

আরও দেখুন:
পুঁজিবাজারে ব্যাংকের অতিরিক্ত বিনিয়োগ সীমার মেয়াদ বাড়লো
ঋণের কিস্তি অর্ধেক দিলেই খেলাপি হবে না প্রতিষ্ঠান

ব্যাংক কোম্পানি আইন, ১৯৯১ এর ৪৫ ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ নির্দেশনা জারি করা হলো। এ নির্দেশনা অবিলম্বে কার্যকর হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button