টেকনো ইনফোঃ এই গ্লাভস গ্রাহকের হাতের বন্ধন মজবুত করবে বলে দাবি করা হয়েছে। এর মাধ্যমে ভারী কাজ সহজে করা যাবে বলে প্রতিবেদনে জানিয়েছে সিএনবিসি।

নুয়াডা’র সহ-প্রতিষ্ঠাতা ফিলিপ কিনাজ ও ভিক্টর ক্রেসপো বলেন, গ্লাভটিতে কৃত্রিম টেনডন ও সেন্সর রয়েছে। ইলেক্ট্রোমেকানিকাল ব্যবস্থার দ্বারা এ এটি স্মার্টওয়াচের মতো একটি ডিভাইসের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করা হয়। যা গ্রাহককে একই হাতে পরতে হবে।

গ্লাভটি অ্যাক্টিভেট করতে গ্রাহকে তার কব্জি হালকা বাঁকাতে হবে। অ্যাক্টিভেটেড হলে গ্লাভটি বুঝতে পারবে তার সহায়তা দরকার। গ্রাহকের হাতের যেকোনো ধরনের নড়াচড়ায় সহায়তা করবে গ্লাভটি। সাধারণ এটি পরে সহজেই কোনো বস্তু তুলতে বা ভারী কিছু ধরে রাখতে পারবেন গ্রাহক, সেটি বাজারের ব্যাগ হোক বা গাড়ির ব্যাটারি।

নুয়াডা গ্লাভস-এর একটি নতুন সংস্করণ গ্রাহকের নড়াচড়া আন্দাজ করে স্বয়ংক্রিয়ভাবে সহায়তা করতে পারে।

উন্নত সংস্করণটি মোবাইল অ্যাপেও কাজ করে যা হাতের কার্যক্রমের ডেটা সংগ্রহ করে। একজন ফিজিক্যাল থেরাপিস্ট সেগুলো পর্যালোচনা করে ব্যবহারকারীকে আরও কার্যকরি করে তুলতে পারবেন বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

২০১৫ সালে শুধু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেই ১৪০০০০ হাজার কর্মীর হাত আহত হয়েছে। এসব মানুষদের সহায়তা করতেই এই গ্লাভস বানিয়েছে নুয়াডা।

ব্রাগা, পর্তুগাল-এ বহু সংখ্যক কর্মীর মাধ্যমে গ্লাভটি পরীক্ষা করছে প্রতিষ্ঠানটি। এর মধ্যে ফোক্সভাগেন-এর একটি কারখানাতেও এর পরীক্ষা চলছে। তথ্য ও ছবিঃ BDnews24

Leave a Reply