কিভাবে আইওএস ১১-এ ফাইলস অ্যাপ ব্যবহার করবেন?

টেকনো ইনফোঃ ম্যানেজ আর গোছানোর জন্য অবশেষে ফাইলস অ্যাপ আনতে চলেছে অ্যাপল। ম্যাক ওসের ফাইন্ডারের মতো আইওএসেও এখন থাকবে ফাইলস। আই ক্লাউড এবং ক্লাউড বেসড অন্যান্য প্রোভাইডারের কাছ থেকে এখন ইউজাররা ফাইল শেয়ার, স্টোর বা অর্গানাইজ করতে পারবেন। আইওএস ১১ এবং তার ওপরের ভার্সনে আইফোন ও আইপ্যাড ব্যবহারকারীরা এই সুবিধা পাবেন।

টেকনো ইনফো বিডি‘র প্রিয় পাঠক: প্রযুক্তি, ব্যাংকিং ও চাকরির গুরুত্বপূর্ণ খবরের আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ টেকনো ইনফো বিডি তে লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন।

এখন দেখার বিষয় কীভাবে এই সুবিধা নেবেন?

থার্ড পার্টি অ্যাপ অ্যাড করা যাবেঃ

Box, Dropbox, OneDrive-এর মতো থার্ড পার্টি অ্যাপ অ্যাকসেস করা যাবে। থার্ড পার্টি এই অ্যাপ অ্যাড করুন এভাবে,

১৷  প্রথমে থার্ড পার্টি ক্লাউড অ্যাপ ডাউনলোড ও ইনস্টল করুন।

২৷  ফাইলস অ্যাপে যান

৩৷  Tap Locations -> Edit

৪৷  ফাইলস অ্যাপে যেটি ব্যবহার করতে চাইছেন, সেই থার্ড পার্টি অ্যাপের টুগল অন করুন

৫৷  ব্যাস, কাজ শেষ৷

ফাইল অর্গানাইজ করাঃ

যদি ডিভাইসে কোনও কিছু চেঞ্জ করতে চান, আপনা আপনি এডিট অন হয়ে যাবে। আই ক্লাউড ড্রাইভ ব্যবহার করছে অন্য সেরকম ডিভাইসেও তা আপনিই হবে।

বন্ধুদের সঙ্গে ফাইল শেয়ারঃ

আইক্লাউড ড্রাইভে রয়েছে, এরকম কোনও ফাইলের লিঙ্ক শেয়ার করা যাবে। যেটা পাঠাতে চাইছেন সেই ফাইল সিলেক্ট করুন, শেয়ার আইকনে ট্যাপ করুন। এয়ার ড্রপ মেসেজ, মেল যে কোন কিছুতেই ফাইল শেয়ার করতে পারেন। লিঙ্ক কপি পেস্ট করতে ইনভাইটও করা যাবে।

ফাইল ডিলিটঃ

ডিলিট আইকনে ট্যাপ করেই ফাইল ডিলিট করা যাবে। আইক্লাউড ড্রাইভ ফোল্ডার থেকে ফাইল ডিলিট হলে কিন্তু অন্যান্য ডিভাইস থেকেও সেই ফাইল ডিলিট হয়ে যাবে। তাই সতর্ক থাকবেন। অবশ্য রিসেন্টলি ডিলিটেড ফোল্ডারে তা থেকে যাবে। তিরিশ দিনের মধ্যে তা আবার ইচ্ছে হলে ফিরিয়েও আনতে পারা যাবে।

সেক্ষেত্রে Locations > Recently Deleted-এ যান। এরপর যেটিকে ফের পেতে চাইছেন, সেই ফাইলটি সিলেক্ট করুন।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button